মেইন ম্যেনু

শেষ বলের ছক্কায় নাটকীয় জয় চেন্নাইয়ের

কী ছিলো না ম্যাচটায়? শুরুতে বোলারদের আধিপত্য, মাঝে দুর্দান্ত ব্যাটিংশৈলি, তা ছাপিয়ে গেলো আম্পায়ারদের বাচ্চাসুলভ ভুল আর শেষটা হলো ছক্কা মেরে ম্যাচ জিতে- এ সব কিছুই হয়েছে বৃহস্পতিবার রাতে রাজস্থান রয়্যালস বনাম চেন্নাই সুপার কিংসের মধ্যকার ম্যাচে।

যেখানে আইপিএলের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন রাজস্থান রয়্যালসকে ম্যাচের শেষ বলে ছক্কা মেরে ৪ উইকেটে পরাজিত করেছে সবশেষ আসরের চ্যাম্পিয়ন দল চেন্নাই সুপার কিংস। বেন স্টোকসকে ছক্কা হাঁকিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন মিচের স্যান্টনার। তবে দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ম্যাচসেরার পুরষ্কার জেতেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

রাজস্থানের করা ১৫২ রান তাড়া করতে নেমে শেষ ওভারে ১৮ রান বাকি ছিলো চেন্নাইয়ের। তাদের থামানোর দায়িত্ব পড়ে বেন স্টোকসের কাঁধে। যিনি কি-না ২০১৬ সালের বিশ্ব টি-টোয়েন্টির ফাইনালে টানা চার বলে ৪ ছক্কা হজম করে ম্যাচ হেরেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে।

যেনো সেদিনেরই পুনরাবৃত্তি ঘটলো গতকাল রাতে জয়পুরের মানসিং স্টেডিয়ামে। তবে এদিন অন্তত শেষ বল পর্যন্ত ম্যাচটা নিতে পারেন স্টোকস। একটি করে ওয়াইড-নো এবং উইকেট নিয়ে প্রথম পাঁচ বলে ১৫ রান খরচ করেন স্টোকস। শেষ বলে ৩ রানের প্রয়োজনে ছক্কা হাঁকিয়েই ম্যাচ শেষ করেন নিউজিল্যান্ডের স্পিনিং অলরাউন্ডার মিচেল স্যান্টনার।

১৫২ রানের তুলনামূলক সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে চেন্নাই। প্রথম পাওয়ার প্লে’র ছয় ওভারে দলীয় সংগ্রহ দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ২৪ রান। শেন ওয়াটসন ০, ফাফ ডু প্লেসিস ৭, সুরেশ রায়না ৪ ও কেদার যাদভ সাজঘরে ফিরে যান ১ রান করে।

পঞ্চম উইকেটে বিপর্যয় সামাল দেন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। আম্বাতি রাইডুকে সঙ্গে নিয়ে গড়েন ৮২ বলে ৯৫ রানের জুটি। ইনিংসের ১৮তম ওভারের চতুর্থ বলে ৪৭ বলে ৫৭ রান করে আউট হন রাইডু। তখনো ১৪ বলে ৩৩ রান করতে হতো জয়ের জন্য।

যে কাজটা ভালোভাবেই করেন ধোনি। তবে তিনি তুলির শেষ আঁচড়টা দিতে পারেননি। ইনিংসের শেষ ওভারের তৃতীয় বলে সাজঘরে ফেরেন। তখনো ৩ বলে প্রয়োজন ৮ রান। যা কি-না করে মিচেল স্যান্টনার। ২ চার ও ৩ ছক্কার মারে ৪৩ বলে ৫৮ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ের পুরষ্কার জেতেন ধোনিই।

এর আগে চেন্নাই সুপার কিংসের বোলারদের সামনে হাত খুলে খেলতেই পারেনি রাজস্থান রয়্যালসের ব্যাটসম্যানরা। তবে শেষদিকে কিছুটা রানের গতি বাড়ায় নির্ধারিত ২০ ওভারে রাজস্থান যেতে পেরেছে ৭ উইকেটে ১৫১ পর্যন্ত।

টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা কিন্তু খারাপ ছিল না রাজস্থানের। দুই ওপেনার আজিঙ্কা রাহানে আর জস বাটলার ১৭ বলেই তুলে ফেলেন ৩১ রান। ১১ বলে ১৪ করে রাহানে ফিরলে ভাঙে এই জুটি। এরপর ১০ বলে ২৩ রান করে ফিরে যান বাটলারও। সঞ্জু স্যামসন করেন মাত্র ৬।

পরের ব্যাটসম্যানরা টি-টোয়েন্টির সঙ্গে মানানসই ব্যাটিংটা আর করতে পারেননি। বেন স্টোকস ২৬ বলে ২৮ করলেও সে ইনিংসে বাউন্ডারির মার ছিল মাত্র একটি।

তবে শেষদিকে জোফরা আর্চার আর শ্রেয়াস গোপাল মিলে ১০ বলে ২৫ রানের ঝড়ো জুটিতে কিছুটা পুষিয়েছেন। আর্চার ১২ বলে ১৩ আর গোপাল মাত্র ৭ বলে ২ চার আর ১ ছক্কায় খেলেন ১৯ রানের হার না মানা ইনিংস।

চেন্নাইয়ের পক্ষে ২টি করে উইকেট নিয়েছেন দীপক চাহার, রবীন্দ্র জাদেজা আর শার্দুল ঠাকুর।



মন্তব্য চালু নেই