মেইন ম্যেনু

শ্রমিক বিক্ষোভে ইন্ধনদাতাদের বের করা হবে : ডিএমপি

চলমান পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভে কেউ যদি ব্যক্তিগতভাবে ইন্ধন দিয়ে থাকে, তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটান পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর মিরপুরে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আছাদুজ্জামান মিয়া এসব কথা বলেন।

বেতন কাঠামোতে বৈষম্য দূর করাসহ বিভিন্ন দাবিতে ৬ জানুয়ারি থেকে থেকে আন্দোলন করছে পোশাক শ্রমিকরা। শ্রমিক বিক্ষোভ নিরসনে গত ৮ জানুয়ারি শ্রম ভবনে পোশাক শ্রমিক-মালিক ও সরকারের ত্রিপক্ষীয় বৈঠক হয়। সেখানে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, গত ১ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হওয়া পোশাক শ্রমিকদের বেতন কাঠামোতে কোনো বৈষম্য বা অসঙ্গতি থেকে থাকলে চলতি জানুয়ারি মাসের মধ্যেই তা সংশোধন করা হবে। ফেব্রুয়ারিতে সংশোধিত গ্রেডিংয়েই বেতন পাবে শ্রমিকরা।

বৈঠকে এ সমস্যা সমাধানে কমিটি গঠনেরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ কমিটিতে গার্মেন্টস মালিকদের পাঁচজন, গার্মেন্টস শ্রমিকদের পাঁচজন এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের দুই সচিব থাকবেন। এই কমিটি চলতি মাসের মধ্যে পোশাক শ্রমিকদের জন্য সরকার ঘোষিত বেতন কাঠামোর কোনো গ্রেডের মধ্যে অসঙ্গতি থাকলে তা বিশ্লেষণ করে প্রতিবেদন জমা দেবে। এর মধ্যে আজ শনিবারও রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে, সাভার, আশুলিয়া ও গাজীপুরের গার্মেন্ট শিল্প অধ্যুষিত এলাকায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘ব্যক্তিগত বা গোষ্ঠীগত স্বার্থে এইভাবে রাস্তার ওপর বিশৃঙ্খলা করে কেউ জনগণের দুর্ভোগ সৃষ্টি করবেন না। কারণ এটি যদি চলতে থাকে, আমরা খুঁজে বের করব, ইন্ধনদাতা কারা। কেন এটা করা হচ্ছে।’

অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করে জনদুর্ভোগ কেন করা হচ্ছে, এরই মধ্যে আমরা আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং গোয়েন্দা (ডিবি) সংস্থাকে নির্দেশ দিয়েছি, এটা খতিয়ে দেখার জন্য। ব্যক্তিগতভাবে কেউ যদি এই ধরনের ষড়যন্ত্র করে থাকে, তাদের চিহ্নিত করে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’



মন্তব্য চালু নেই