মেইন ম্যেনু

সহায়ক সরকার নিয়ে বিএনপির নাড়াচাড়ায় কিছু বলেননি সুষমা

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে বিএনপির সৌজন্য সাক্ষাতের প্রতি ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি সহায়ক সরকারের বিষয়টি নিয়ে নাড়াচাড়া করছে। কিন্তু সুষমা স্বরাজ এ বিষয়ে কিছু বলেননি।

সোমবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, সারা বিশ্বে যারা সরকারে থাকে, তারাই নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করে।

আওয়ামী লীগের নতুন কমিটির এক বছর পূর্তি উপলক্ষে এই সভা ডাকা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সাক্ষাতের সময় বিএনপি নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের বিষয়ে কথা বলেছিল। কিন্তু সুষমা স্বরাজের সঙ্গে কথা বলে জেনেছি, তিনি সহায়ক সরকার বিষয়ে কিছু বলেননি। সারা বিশ্বে নির্বাচনকালীন সরকার সহায়ক সরকারের ভূমিকা পালন করে। নির্বাচন কমিশন নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করে।’

সুষমা স্বরাজের সঙ্গে বৈঠক করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আশাবাদী হয়েছেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের সময় সুষমা স্বরাজ সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের কথা বলেছেন। তাতে ফখরুল সাহেব আশাবাদী হয়েছেন। এমন নির্বাচন তো আমরাও চাই।’ তিনি বলেন, বিএনপি আওয়ামী লীগকে ২৫টি আসন দিতে চেয়েছে। এই ২৫টি আসন দেওয়ার মালিক কি বিএনপি? গত নির্বাচনের আগে তারা আওয়ামী লীগকে ৩০টি আসন দিতে চেয়েছিল। পরে তারাই ৩০টি আসন পায়নি।

বিএনপিকে নির্বাচন থেকে সরে না আসার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ইলেকশনটা বয়কট করবেন না। একটি জাতীয় দল, বড় দল; আপনাদের কাছে জনগণের প্রত্যাশা আছে। আমাদেরও প্রত্যাশা আপনারা নির্বাচনে আসবেন।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ যে আশ্বাস দিয়েছেন, তাতে আমরা আশাবাদী। তিনি জোর দিয়ে বলেছেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতেই হবে। তিনি কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের ওপরও জোর দিয়েছেন।’

গতকাল রোববার বাংলাদেশ সফররত ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। সেখানে সুষমা স্বরাজ রোহিঙ্গাদের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এই মনোভাব ব্যক্ত করেন।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সেনা মোতায়েন কেন চায় না—সাংবাদিকের এ প্রশ্নের উত্তরে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি নিজে যেটা প্র্যাকটিস করে না, সেটা চায় কেন? আমরা সেনা মোতায়েন চাই না, এটা ঠিক না। নির্বাচন কমিশন যদি মনে করে কোথাও সেনা মোতায়েন করা দরকার, তাহলে তারা সেনা মোতায়েন করবে। অহেতুক এই বিষয়টি নিয়ে কথা আসছে কেন?’

সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় আওয়ামী লীগের এক বছরের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সেখানে দল কীভাবে আরও সংগঠিত করা যায় এবং সামনের নির্বাচনে কীভাবে দলীয়ভাবে কাজ করা যায়, এসব নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ বিষয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, দলের নতুন এই কমিটির সফলতা নির্ভর করবে আগামী নির্বাচনের ওপর। সারা দিন ভালো খেলে, যদি গোল দিতে না পারা যায়, তাহলে ভালো খেলার কোনো দরকার নেই। অন্যান্য সময়ের চেয়ে দল অনেক বেশি সুসংগঠিত অবস্থানে আছে। এ পর্যন্ত ৪২ লাখ নতুন সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন হয়েছে বলেও তিনি জানান।

দলে শৃঙ্খলা আনার ক্ষেত্রে সফলতার বিষয়ে জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ শৃঙ্খলা ভঙ্গের বিপরীতে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে। ক্ষমতাসীন দলের সাংসদ জেলে। মন্ত্রী আদালতে নিয়মিত হাজিরা দেন। বিশ্বজিৎ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় দলের কর্মীদের ফাঁসির আদেশ হয়েছে। এসব তাহলে হতো না। যখন দলে কোনো বিশৃঙ্খলা হয়, তখন অনুপ্রবেশকারী চিহ্নিত করা সহজ হয়।

সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সহধর্মিণী শিলা ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয় এবং তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব–উল আলম হানিফ, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, মহিবুল হাসান চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই