মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরা-১ : মামলা বেশি স্বামীর, টাকা বেশি স্ত্রীর

সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনে বিএনপির প্রার্থী হলেন জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও বর্তমান বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব ও তার স্ত্রী অ্যাডভোকেট শাহানারা পারভীন।

রোববার যাচাই-বাছাইয়ে স্বামী-স্ত্রী দুইজনের মনোনয়নপত্র বৈধ বলে ঘোষণা করেছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা। একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য স্বামী সাবেক এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিব ও স্ত্রী অ্যাডভোকেট শাহানারা পারভীন নির্বাচনী হলফনামায় তাদের সম্পদের বিবরণী জমা দিয়েছেন। সেখান থেকে জানা যায়, হাবিবুল ইসলাম হাবিবের নামে মামলা বেশি আর স্ত্রীর নামে টাকার পরিমাণ বেশি।

২০১৮ সালে নির্বাচনী হলফনামায় দাখিলকৃত বিবরণীতে জানা যায়, হাবিবুল ইসলাম হাবিবের নামে হত্যা, অস্ত্র, দুর্নীতি, রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডসহ বিভিন্ন অভিযোগে ১৮টি মামলা রয়েছে। যেসব মামলা হাইকোর্টের নির্দেশে স্থাগিত রয়েছে আবার কোনোটি তদন্তাধীন। তবে স্ত্রীর নামে রয়েছে দুটি মামলা।

বাৎসরিক হিসাবে হাবিবের কৃষি খাত থেকে আয় ৪৫ হাজার টাকা, স্ত্রীর ৫০ হাজার টাকা, বাড়ি ভাড়া থেকে আয় ১৫ লাখ ৩০ হাজার ৯৫৭ টাকা, ব্যবসা থেকে আয় ৪ লাখ ৫২ হাজার ৫২০ টাকা, শেয়ার বাজার ও ব্যাংক থেকে স্ত্রীর আয় ৮২ হাজার ৬৭৩ টাকা, শিক্ষকতা, চিকিৎসা, আইন, পরামর্শ দিয়ে স্ত্রীর আয় ৪ লাখ ২৫ হাজার, অন্যান্য আয় ৩৭ হাজার ৫০০ টাকা, নগদ রয়েছে ১৫ লাখ ৭১ হাজার ৮০৩ টাকা, স্ত্রীর নগদ রয়েছে ৩৭ লাখ ৩০ হাজার ৮৮৯ টাকা, ব্যাংকে জমা ২০ লাখ ২৮ হাজার ৪৭৭ টাকা, স্থানীয় আমানতে বিনিয়োগ স্ত্রীর নামে ১৫ লাখ টাকা রয়েছে।

এছাড়া (এফডিআর), ট্যাংকলরি ১৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা, স্ত্রীর প্রাইভেটকার ৮ লাখ টাকা, স্বামী-স্ত্রীর নামে ২০ ভরি স্বর্ণ এক লাখ টাকার, ইলেকট্রিক সামগ্রী দেড় লাখ টাকার, আবসাবপত্র আড়াইলাখ টাকার, কৃষি জমি ২ দশমিক সাড়ে ১১ একর; যার মূল্য ১০ লাখ ৭ হাজার টাকা, স্ত্রীর নামে ৮ বিঘা জমি রয়েছে; যার মূল্য ২ লাখ টাকা, অকৃষি জমি ৪৪.৭৫ একর; যার মূল্য ১৬ লাখ ১০ হাজার টাকা, দোতলা বাড়ি যার রয়েছে; যার মূল্য ১০ লাখ টাকা, বনানীতে ৬তলা বাড়ি; যার মূল্য ৩ কোটি ৯৪ লাখ টাকা, ধানমন্ডিতে স্ত্রীর নামে বাড়ি রয়েছে; যার মূল্য ৪৪ লাখ ২ হাজার টাকা।

এদিকে, সাবেক এ এমপির ইসলামী ব্যাংকে ঋণ রয়েছে ১ কোটি ২৪ লাখ ৮৭ হাজার ৩২৭ টাকা; স্ত্রীর ন্যাশনাল ব্যাংকে ঋণ রয়েছে ১২ লাখ ৩০ হাজার ৮৮৯ টাকা।



মন্তব্য চালু নেই