মেইন ম্যেনু

‘সাত জনমের সৌভাগ্য যে, আমি আইয়ুব বাচ্চুর ভাই হতে পেরেছি’

কিংবদন্তি সংগীত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর তৃতীয় নামাজে জানাজা চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে জানাজার আগে আইয়ুব বাচ্চুর ছোটভাই ইরফান ছট্টু কিছু কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সাত জনমের সৌভাগ্য যে, আমি আইয়ুব বাচ্চুর ভাই হতে পেরেছি। আমার ভাইয়ের জন্য মানুষ কতটা পাগল, তা খুব কাছ থেকে দেখেছি। তার জন্য মানুষ আমাকেও চেনে, সম্মান করে। ভাইয়ের জন্য আরেক ভাই সম্মান পায়, এটা অনেক বড় পাওয়া। একটাই অনুরোধ, আইয়ুব বাচ্চু হিসেবে তাকে যে ভালোবাসা দিয়েছেন, তা রেখে দেবেন। আর কিচ্ছু চাই না।’

ইরফান ছট্টু আরও বলেন, সব মানুষ ছিল ভাইজানের আপন। তিনি চলে যাওয়ার পর দেশ ও বিদেশের মানুষ তার জন্য কাঁদছেন, এতেই প্রমাণ হয় ভাইজান মানুষের কত আপন ও প্রিয় ছিলেন। আজ তিনি আমাদের মাঝে নেই। তার জন্য শুধু দুহাত তুলে দোয়া করবেন। তিনি যেন ভালো থাকেন। কারও মনে ভুলেও কষ্ট দিয়ে থাকলে সেসব ক্ষমা করে দেবেন।’

নামাজে জানাজায় চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজসহ উপস্থিত ছিলেন ইবনে হাসান খান, আব্দুর রহমান, হেলাল খান, ইজাজ খান স্বপন, মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, আব্দুর নূর তুষার, তানভীর খান, নির্মাতা সালাহ্উদ্দিন লাভলু, বাপ্পা মজুমদার প্রমুখ।

এর আগে শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে রাজধানীর মগবাজারের কাজী অফিস গলির মসজিদের সামনে আইয়ুব বাচ্চুর দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। দ্বিতীয় জানাজায় রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মঈনুল হোসেন, নাট্যকার সালাহউদ্দিন লাভলু, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আব্দুর নূর তুষার, বিএনপি নেতা বজলুল করিম চৌধুরী আবেদসহ অনেকে অংশ নেন।

এর আগে শুক্রবার বাদ জুমা দুপুর ২টায় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এই জানাজায় অংশ নেন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক অঙ্গনের নেতাকর্মীরা। এ ছাড়া তার ভক্ত অনুরাগী, সহশিল্পী, চলচ্চিত্র অঙ্গনের গুণীজনরা শেষ শ্রদ্ধা জানানো শেষে জানাজায় অংশ নেনে। ভক্ত অনুরাগীদের অংশগ্রহণে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের প্রায় অর্ধেকটা পূর্ণ হয়ে যায়।

প্রথম জানাজার নামাজ শুরু হওয়ার আগে আইয়ুব বাচ্চুর ছোট ভাই জুয়েল সবার উদ্দেশে বলেন, আপনাদের প্রিয় আইয়ুব বাচ্চু সব সময় বাবা-মার প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছিলেন। সবাইকে নিজের বাবা-মাকে শ্রদ্ধা করতে বলতেন। এই প্রিয় মানুষ আর আমাদের মাঝে নেই। জীবনে চলার পথে ইচ্ছায়-অনিচ্ছায় যদি আইয়ুব বাচ্চু কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকেন তাহলে সবাই উনাকে মাফ করে দেবেন।

এর আগে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সকাল ১০টা ২৫ মিনিট থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয় আইয়ুব বাচ্চুকে।

এখন আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ আবারও স্কয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হবে। সেখান থেকে চট্টগ্রামে নেয়া হবে তার মরদেহ। অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা থেকে দেশের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন আইয়ুব বাচ্চুর মেয়ে ফাইরুজ সাফরা আইয়ুব ও ছেলে আহনাফ তাজোয়ার আইয়ুব। তারা এলে চট্টগ্রামে শনিবার মায়ের কবরের পাশে তার মরদেহের দাফন করা হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে নিজ বাসায় অচেতন হয়ে পড়েন তিনি। এরপর স্কয়ার হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মাত্র ৫৬ বছর বয়সে আইয়ুব বাচ্চুর এই মৃত্যুতে সারা দেশে শোকের ছায়া নেমে আসে।



মন্তব্য চালু নেই