মেইন ম্যেনু

সীমান্তে কাঁটাতার বসানোর কাজ ৯৫ ভাগ শেষ : বিএসএফ

ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) জানিয়েছে, ভারত ও বাংলাদেশ সীমান্তে কাঁটাতার বসানোর কাজ প্রায় ৯৫ শতাংশ সম্পূর্ণ হয়েছে।

গত বছর বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও বিএসএফের সঙ্গে এক দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর দুই দেশের মধ্যে অবস্থিত আন্তর্জাতিক সীমান্তকে কাঁটাতার দিয়ে ঘিরে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তার পরেই শুরু হয় সামগ্রিক কাজ।

বিএসএফপ্রধান কে কে শর্মা জানান, আসামের করিমগঞ্জের মতো কিছু নদী অঞ্চল বাদ দিয়ে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তজুড়ে বসানো হয়েছে কাঁটাতারের বেড়া। তিনি জানান, একস্তরীয় এই কাঁটাতারের বেড়ার ফলে দুই দেশের মধ্যে সীমান্ত অপরাধের হার কমবে। সেইসঙ্গে ভারত ও বাংলাদেশ সীমান্ত অঞ্চলের প্রায় ২৫০ গ্রামের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত হবে। তবে এসব গ্রামের বেশিরভাগই পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মধ্যে পড়েছে।

কে কে শর্মা জানান, ভারত ও বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী দুই দেশের মধ্যে অপরাধ দমনের আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে। বিশেষ করে সীমান্তে মৃত্যুর ঘটনা কমানোর দিকে বিশেষ নজর দিচ্ছে বিএসএফের জওয়ানরা।

বিএসএফপ্রধান দাবি করেন, বর্তমানে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে সম্পর্ক অনেক ভালো। সেই সম্পর্কে যাতে ভবিষ্যতে চিড় না ধরে, তার জন্য দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীই যথেষ্ট সজাগ। তবে সীমান্তে মৃত্যুর ঘটনা কমানো জরুরি বলেও মন্তব্য করেন কে কে শর্মা। তিনি আরো বলেন, দুই দেশের সীমান্ত এলাকায় শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখা জরুরি। তেমনি সীমান্ত অঞ্চলে বসবাসকারী মানুষের কল্যাণ করাও প্রয়োজন। এই লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর জওয়ানরা কাজ করে চলেছে।

শর্মা দাবি করেন, ভারত ও বাংলাদেশ সীমান্তে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর নজরদারির ফলে গরু পাচারের হার এরই মধ্যে উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে। আগে যেখানে বছরে ২৩ লাখের মতো গরু পাচার হতো, এখন সেখানে সেই সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে পাঁচ থেকে ছয় লাখ। পাশাপাশি সীমান্তে চোরাকারবারির মাত্রাও অনেকটাই কমেছে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, দুই দেশের সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া দেওয়ায় আগামী দিনে এই হার আরো কমবে।






মন্তব্য চালু নেই