মেইন ম্যেনু

সুবীর নন্দীর শেষকৃত্য হবে সবুজবাগের কালীবাড়িতে

(বুধবার) সকাল ৬টায় বাংলাদেশে আনা হবে সুবীর নন্দীর মরদেহ। বিমানবন্দর থেকে গ্রিনরোডে তার বাসায় নিয়ে যাওয়া হবে। পরে বেলা ১১টায় সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে, এরপর রামকৃষ্ণ মিশনে নেয়া হবে। সবশেষ শেষকৃত্য হবে রাজধানীর সবুজবাগের কালীবাড়িতে। এদিকে, বরেণ্য এই শিল্পীর মৃত্যুতে শূন্যতা নেমে এসেছে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে।

নীড় থেকে নিরালায় একাই চলে গেলেন সুরের পাখি সুবীর নন্দী। চশমাটা আছে আগের জায়গায়। প্রিয় শোবার ঘরের কোণায় পড়ে আছে অবসরে বই পড়ার টেবিলটিও। দেয়ালে সাঁটা প্রিয় মানুষের ছবি। শুধু নেই সুবীর নন্দী।

১৮ দিন সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ৩০ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয় সুবীর নন্দীকে। শুরু হয় উন্নত চিকিৎসা। চিকিৎসা চলাকালে পরপর তিনবার হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। সব চেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়ে মঙ্গলবার ভোরে ওপাড়ে পাড়ি জমান কোটি মানুষের প্রিয় এই কণ্ঠ।

ডা. সামন্ত লাল বলেন, ‘সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকেরা বিভিন্নভাবে চেষ্টা করেও তাকে ফেরাতে পারিনি।’

সুবীর নন্দীর চলে যাওয়ার খবর শুনে গ্রীন রোডে তার বাসভবনে ছুটে আসেন তার সাথে কাজ করা দীর্ঘ দিনের সহযোদ্ধারা।

পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয় বুধবার সকালে দেশে আনা হবে সুবীর নন্দীর মরদেহ। সর্বস্তরের শ্রদ্ধা নিবেদনে সেখান থেকে সকাল ১১টায় নেয়া হবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। আর শেষকৃত্য হবে রাজধানীর সবুজবাগের কালিবাড়িতে।

একজন সুবীর হয়তো আর আসবেন না। সব মায়া আর ভালোবাসার বাধন ফেলে; চলে যাওয়া এই শিল্পী কি কখনোও জানবেন, তাকেও কতটা ভালোবেসেছিলো দেশ-বিদেশের কোটি শ্রোতা।



মন্তব্য চালু নেই