মেইন ম্যেনু

সেই ৪০০ বোমা সৌদি আরবকে দেবে স্পেন

লেজার-নিয়ন্ত্রিত অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ৪০০ বোমা সৌদি আরবের কাছে বিক্রি না করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল স্পেন, এক সপ্তাহের ব্যবধানে সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসলো দেশটি। সৌদি জোট ইয়েমেন যুদ্ধে ওইসব বোমা ব্যবহার করলে অনেক বেসামরিক লোকের প্রাণহানি ঘটবে- এমন আশঙ্কায় রিয়াদের কাছে বোমা বিক্রি না করতে মাদ্রিদকে চাপ দিচ্ছিল আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

তারই পরিপ্রেক্ষিতে সৌদি আরবের কাছে বোমা বিক্রি না করার ঘোষণা দেয় স্পেনের বর্তমান কমিউনিস্ট সরকার।

কিন্তু বৃহস্পতিবার দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জোসেপ ব্রোয়েল বলেন, ‘আগের সরকারের (রক্ষণশীল) সঙ্গে ২০১৫ সালে করা চুক্তির প্রতি সম্মান জানিয়ে সৌদি আরবের কাছে বোমাগুলো হস্তান্তর করা হবে।’

স্প্যানিশ রেডিও ওন্ডা সিরোকে ব্রোয়েল এ কথা বলেন বলে জানিয়েছে আলজাজিরা। এ নিয়ে তিনবার সিদ্ধান্তটি পুনর্বিবেচনা করা হলো বলে জানান তিনি।

স্প্যানিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘চুক্তিটি পরিপালন না করার কোনো কারণ আমরা দেখছি না।’

বেসামরিক লোক হতাহতের বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, স্পেনের এই বোমা বিশেষ প্রযুক্তির এবং নিখুঁত নিশানা করা সম্ভব। ফলে বেসামরিক লোক হতাহতের সম্ভাবনা কম।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। এরপর থেকেই সৌদি আরবকে যে চারটি দেশ অস্ত্র দিয়ে সহায়তা করে আসছে স্পেন তার মধ্যে অন্যতম। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স রয়েছে এ তালিকায়।

গত মাসে ইয়েমেনে একটি বাসে বোমা হামলা চালায় সৌদি জোট। এতে ৫১ জন নিহত হয়, যার ৪০ জনই শিশু। ওই ঘটনার পর সৌদি আরবের কাছে অস্ত্র বিক্রি না করার চাপ দেয় আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনসহ অন্যান্য পক্ষ।

ইয়েমেনে সৌদি জোটের হামলার শুরুর পর এ পর্যন্ত ১০ হাজারের বেশি বেসামরিক লোক নিহত হয়েছে। কিন্তু আলজাজিরা বলছে, প্রকৃত সংখ্যা আরো অনেক বেশি হবে, কারণ এক বছরেরও বেশি সময় ধরে ওই সংখ্যা আর নবায়ন করে জাতিসংঘ।



মন্তব্য চালু নেই