মেইন ম্যেনু

সেমিতে যেতে কঠিন সমীকরণের মুখোমুখি বাংলাদেশ

চলতি ২০১৯ বিশ্বকাপের শেষ প্রান্তে এসে কঠিন সমীকরণের মুখোমুখি বাংলাদেশ। অথচ এত হিসেব-নিকেশের প্রয়োজনই হতো না, যদি নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচটি জিততেন বা ভাগ্য খারাপ হওয়ায় সহজ প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেসে না যেত।

যদিও এখনও দুটি ম্যাচ খেলা বাকি রয়েছে টাইগারদের। যেখানে প্রতিপক্ষ প্রতিবেশী দেশ ভারত ও পাকিস্তান। আগামী ২ ও ৫ জুলাই যথাক্রমে ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ। তবে ৩০ জুন ভারত ইংল্যান্ডের কাছে হেরে যাওয়ায় বাংলাদেশের জন্য সমীকরণটা আরও জটিল হয়ে পড়েছে। ফলে পরের দুটি ম্যাচ জিতলেই হবে না। নেট রান রেটও বাড়াতে হবে সাকিব-মুশফিকদের।

বর্তমানে ৭ ম্যাচে সমান ৭ পয়েন্ট পাওয়া বাংলাদেশের অবস্থান ৬ নাম্বারে। পরের দুটি ম্যাচ জিতলে পয়েন্ট দাঁড়াবে ১১তে। অন্যদিকে এক ম্যাচ হাতে রেখে ইংল্যান্ডের পয়েন্ট ১০। তাদের অবস্থান চারে। সুতরাং বাংলাদেশের শেষ দুটি ম্যাচে জিতলেই চলবে না, প্রার্থনা করতে হবে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ইংলিশদের পরাজয়। তাহলেই সেমিতে যেতে পারবে লাল-সবুজ জার্সিধারীরা।

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ৮ ম্যাচে ৭ জয়ে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে একমাত্র দল হিসেবে অস্ট্রেলিয়াই সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে। তবে রোববার ভারত জিতলে তারাও শেষ চার নিশ্চিত করতে পারত। কিন্তু ইংলিশদের কাছে হেরে ৭ ম্যাচে ৫ জয়ে তাদের পয়েন্ট ১১, অবস্থান দ্বিতীয়। মজার ব্যাপার হলো- কোহলিরা যদি নিজেদের শেষ দুটি ম্যাচে হেরে যায়, তাহলে আসর থেকে বাদ পড়তে পারে তারাও।

এদিকে তিনে থাকা নিউজিল্যান্ডও ১১ পয়েন্ট অর্জন করেছে। তবে ইংলিশদের বিপক্ষে শেষ ম্যাচ জিততে না পারলে কেন উইলিয়ামসনদেরও কপালে জুটতে পারে দুর্গতি।

সেমির রেসে টিকে থাকা আরেক দলের নাম পাকিস্তান। পাঁচে থাকা সরফরাজরা ৮ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট অর্জন করেছে। ফলে বাংলাদেশকে শেষ ম্যাচ হারাতে পারলে তাদেরও সম্ভাবনা টিকে থাকবে। তবে টাইগারদের সেমিতে উঠতে হলে ভারত ও পাকিস্তানকে হারানোর পাশাপাশি নেট রান রেটের দিকে নজর রাখতে হবে। কেননা, তখন রান রেটই হতে পারে একমাত্র নিয়ামক।



মন্তব্য চালু নেই