মেইন ম্যেনু

সেল্টার কাছে হেরেই গেল ‘দ্বিতীয়’ বার্সা

লিগ শিরোপা নিশ্চিত হয়ে গেছে। মঙ্গলবার আবার লিভারপুলের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগ। দুইয়ে মিলে বার্সেলোনা কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে কাল নিয়মিত একাদশের ১০ জনকেই বিশ্রাম দিয়েছিলেন। মেসি, সুয়ারেজ, পিকে, কুতিনহো, বুসকেটস, জর্ডি আলবা, ক্লেমেন্তে লেংলেত, সের্গি রবার্তোদের বিশ্রাম দিয়ে নামিয়ে ছিলেন পুরো দ্বিতীয় সারির দল। ভালভার্দের এই বিলাসী জুয়ার ফল যা হওয়ার তাই হয়েছে। পুঁচকে সেল্টা ভিগোর কাছে ২-০ গোলে হেরে গেছে দ্বিতীয় সারির বার্সা।

এক সঙ্গে ১০ তারকাকে বিশ্রাম। এমন অতি বিলাসী জুয়া খেলার জন্য বার্সা কোচ স্পেশাল একটা ধন্যবাদ পেতেই পারেন প্রতিপক্ষ সেল্টা ভিগোর কোচ ফ্রান এসক্রিবের কাছ থেকে। কালকের এই জয়ে যে অবনমন শঙ্কা থেকে মুক্তি পেয়েছে সেল্টা ভিগো।

অবনমন এলাকায় ঘুর পাক খাচ্ছিল যে দলটি, সেই দলটিই বার্সেলোনাকে হারিয়ে উঠে এসেছে পয়েন্ট তালিকার ১৪ নম্বরে। দ্বিতীয় দল নামিয়ে জয়ের পথ খুলে দেওয়ায় বার্সা কোচকে ধন্যবাদ দেওয়াটা তো সেল্টা কোচের দায়িত্বের মধ্যেই পড়ে!

প্রকাশ্যে না দিলেও ফ্রান্স এসক্রিবার মনে মনে হয়তো ঠিকই বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ভালভার্দের প্রতি। যে দলই নামাক, সেল্টার মতো দলের কাছে হার মানাটা বার্সেলোনার জন্য কষ্টেরই। এই হার কষ্টের মধ্যে বার্সা শিবিরে আবার মরার ওপর খড়ার ঘা হয়ে এসেছে উসমানে ডেম্বেলের চোট।

ম্যাচের ৫ মিনিটেই হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন ফরাসি তরুণ। প্রাথমিক পরীক্ষায় জানা গেছে, তার চোটটা বেশ গুরুতর। মঙ্গলবার লিভারপুলের বিপক্ষে তাকে পাওয়া না যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

নিজেদের মাঠে দ্বিতীয় সারির বার্সাকে পেয়ে ম্যাচের শুরু থেকেই প্রাধান্য বিস্তার করে খেলতে থাকে সেল্টা। কিন্তু গোলের দেখা পাচ্ছিল না কিছুতেই। অবশেষে ৬৭ মিনিটে গ্যালারিভর্তি সমর্থকদের মুখে হাসি ফোটান ম্যাক্সি গোমেজ। উরুগুইয়ান তারকা দুর্দান্ত এক গোল করে এগিয়ে দেন সেল্টা ভিগোকে। ৮৮ মিনিটে দ্বিতীয় গোলটি করেছেন সেল্টার স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড ইয়াগো অসপাস, পেনাল্টি থেকে।

‘দ্বিতীয়’ বার্সা মাঠে কতটা সংগ্রাম করেছে, সেটি আরেকটা তথ্যেই স্পষ্ট। ম্যাচে মোট ৬টি হলুদকার্ড দেখিয়েছেন রেফারি। তার ৫টি হলুদকার্ডই পেয়েছেন বার্সেলোনার খেলোয়াড়েরা। বোঝাই যাচ্ছে, সেল্টার আক্রমণ রুখতে গিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছিল বার্সা!



মন্তব্য চালু নেই