মেইন ম্যেনু

স্নাইপারের টার্গেটে রাহুল গান্ধী, গুপ্তহত্যার আশঙ্কা

ভারতের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী সাতবার স্নাইপারের টার্গেট হয়েছিলেন। রাহুল গুপ্তহত্যার শিকার হতে পারেন বলে শঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। এ নিয়ে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে দলের পক্ষ থেকে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে রাহুল গান্ধীর জন্য নিরাপত্তাব্যবস্থা আরও জোরদারের দাবি জানিয়েছে এ রাজনৈতিক দল। খবর এনডিটিভির।

এতে বলা হয়েছে, বুধবার উত্তরপ্রদেশের আমেতিতে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি স্নাইপারের টার্গেট হয়েছেন। বিশেষ বাহিনীর সুরক্ষাবলয়ে থাকার পরও বিভিন্ন দিক থেকে রাহুল গান্ধীর মাথায় সাতবার লেজার তাক করা হয়।

এ লেজার নিয়েই শঙ্কা প্রকাশ করেছে কংগ্রেস। চিঠিতে বলছে, সম্ভবত কোনো স্নাইপারগান থেকে রাহুল গান্ধীকে নিশানা করা হয়েছিল।

উত্তরপ্রদেশ প্রশাসনকে দোষারোপ করে দলটি কেন্দ্রকে ‘হুমকি নিরপেক্ষভাবে তদন্ত ‘ করতে বলেছে।

রাহুল গান্ধীর বাবা এবং দাদি, সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজিব গান্ধী ও ইন্দিরা গান্ধীকে হত্যা করা হয়েছিল। এমন বড় ধরনের হুমকিতে রাহুল গান্ধীকে এসপিজি (স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ) সুরক্ষা দিচ্ছে।

এ ঘটনায় দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এসপিজির পরিচালকের সঙ্গে কথা বলেছিলেন তারা বলেছে, আলোটি একটি সেলফোন থেকে এসেছে।

কংগ্রেস বলছে, ৪৮ বছর বয়সী রাহুল গান্ধী যখন সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপ করছিলেন তখন সবুজ রঙের একটি লেজার সরাসরি রাহুলের কপাল লক্ষ্য করে থেমে থেমে সাতবার ফেলা হয়। দলটির সিনিয়র নেতা আহমেদ প্যাটেল, রনদীপ সূর্য্যওয়ালা এবং জয়রাম রমেশ চিঠিটিতে স্বাক্ষর করেন।

কংগ্রেস দাবি করছে, ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করা হয়েছে। এ সময় বিভ্ন্নি লোকজনের সঙ্গে চারজন নিরাপত্তাকর্মী ছিলেন। এতে নিশ্চিত হওয়া গেছে এ আলো স্নাইপার গান থেকে এসেছে।

তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় চিঠি পাওয়ার বিষয় অস্বীকার করেছে। এসপিজি প্রধানের বরাত দিয়ে ভিডিও নিয়ে মন্তব্যে তারা বলছে, এতে নিরাপত্তা সংক্রান্ত কোনো বিষয় ছিল না। ‘সবুজ আলো’ দেখা ভিডিও ক্লিপে বোঝা যাচ্ছে এটি কোনো মোবাইল ফোন থেকে এসেছে।



মন্তব্য চালু নেই