মেইন ম্যেনু

স্বামী থাকা সত্ত্বেও বিধবা ভাতা তুলছেন পৌর কাউন্সিলর

সচ্ছল ও স্বামী থাকা সত্ত্বেও বিধবা ভাতা ভোগ করেন নাটোরের বনপাড়া পৌরসভার সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর শরিফুন্নেসা শিরিন (৪০)।

গত পাঁচ বছর ধরে তিনি বিধবা ভাতা উত্তোলন করেছেন। সোমবার (১৫ জুলাই) দুপুরে উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুরাইয়া আক্তার কলি এ অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, সংরক্ষিত নারী আসনের কাউন্সিলর শরিফুন্নেসা শিরিন সচ্ছল ও সধবা হওয়ার সত্ত্বেও গত পাঁচ বছর ধরে বিধবা ভাতা ভোগ করছেন। পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কালিকাপুর গ্রামের ভাতাভোগী তয়জান বেগম মারা যাওয়ার পর নাম পরিবর্তন করে শরিফুন্নেসা শিরিন ২০১৪ সালের ১ জুলাই থেকে নিয়মিত ভাতা তুলেছেন। তার ভাতা বই নম্বর- ৭৫/১ এবং হিসাব নম্বর- ০০২১৩৩০৬২।

এসময় আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় উপস্থিত স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস বিষয়টি খোঁজ নিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ইউএনও মো. আনোয়ার পারভেজকে নির্দেশ দেন।

সভায় বনপাড়া পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি কেএম জাকির হোসেন জুয়েল বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিল না। আমার অগোচরে এমন ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। পৌরসভার পরবর্তী মাসিক সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা রবিউল করিম সাংবাদিকদের বলেন, কার্ডটি আমি যোগদানের আগে ইস্যু করা হয়েছে। আমার জানা না থাকায় এমনটা হয়েছে। এখন থেকে তার নামে আর কোনো ভাতা বরাদ্দ দেওয়া হবে না।

বড়াইগ্রাম উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আনোয়ার পারভেজ জানান, ভাতার কার্ডটি বাতিলসহ তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য কাউন্সিলর শরিফুন্নেসা শিরিনের মোবাইলে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।



মন্তব্য চালু নেই