মেইন ম্যেনু

হরিণের মাংস বলে বিক্রি হয় শূকরের মাংস!

বাগেরহাটে সুন্দরবন থেকে বন বিভাগ ১২ কেজি শূকরের মাংস জব্দ করেছে। শিকারিরা শূকরের মাংসকে হরিণের মাংস বলে চালায় বলে দাবি করেছেন বন বিভাগের কর্মকর্তারা।

বুধবার গভীর রাতে পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের পুরাতন পানিঘাট এলাকা থেকে বস্তাভর্তি শূকরের মাংস জব্দ করে বন বিভাগের কর্মকর্তারা। তবে এঘটনায় কাউকেই বন বিভাগ গ্রেফতার করতে পারেনি।

বৃহস্পতিবার (০১ আগস্ট) দুপুরে জব্দকরা মাংস আদালতে সোপর্দ করে সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগ।

সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মাহমুদুল হাসান বলেন, চোরা শিকারিরা হরিণের মাংস পাচার করছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই এলাকায় অভিযান চালায় বনবিভাগের সদস্যরা।

এসময় একটি নৌকাকে চ্যালেঞ্জ করলে নৌকায় থাকা মুখ বাধা এক ব্যক্তি পালিয়ে যায়। নৌকা তল্লাশি করে বস্তা ভর্তি ১২ কেজি মাংস পাওয়া যায়। পরে মাংসগুলো পরীক্ষা করে দেখা যায় এগুলো শূকরের মাংস।

তিনি আরও বলেন, চোরা শিকারিরা হরিণের মাংস কিছু লোকের কাছে চড়া দামে বিক্রি করে। টাকার নেশায় শিকারিরা অনেক সময় শূকর জবাই করে হরিণের মাংস বলে চালিয়ে দেয়।

এ বিষয়টি আজ স্পষ্ট হয়েছে। সুন্দরবনের বাঘের প্রধান খাদ্য হরিণ। তাই সুন্দরবন ও এ বনের বাঘ বাঁচাতে হরিণের মাংস না খাওয়ার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানান এ কর্মকর্তা।



মন্তব্য চালু নেই