মেইন ম্যেনু

হিন্দু অভিনেত্রীদেরও অভিনয় ছাড়া উচিত!

জায়রা ওয়াসিম। ‘দঙ্গল’ খ্যাত এ অভিনেত্রী পাঁচ বছরের জনপ্রিয়তায় ইতি টেনে অভিনয় থেকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করার কথা ঘোষণা করেছেন। ফিল্ম কেরিয়ারের জন্য ধর্মীয় বিশ্বাসে বাধা সৃষ্টি হওয়াতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান বলিউডের ‘সিক্রেট সুপারস্টার’।

জায়রা ওয়াসিমের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ইতিমধ্যেই বিতর্ক দেখা দিয়েছে। সিদ্ধান্তের সমালোচনা করতে দেখা গিয়েছে তসলিমা নাসরিন, রবিনা ট্যান্ডনদের। তেমনই ‘ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত’ বলে পাশে দাঁড়িয়েছেন স্বরা ভাস্কর, ওমর আবদুল্লার মতো বিশিষ্টরা।

জায়রার সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্কের মধ্যেই এবার এই ইস্যুতে বিতর্কিত মন্তব্য করলেন হিন্দু মহাসভার সভাপতি স্বামী চক্রপানি। টুইটারে এক পোস্টে তিনি বলেন, ‘অভিনেত্রী জায়রা যা করেছেন তা প্রশংসনীয়। হিন্দু অভিনেত্রীদেরও অনুপ্রেরণা নেওয়া উচিত।’ যদিও কেন অভিনয় ধর্মের জন্য অনুচিত, তার কোনও ব্যাখ্যা দেননি স্বামী চক্রপানি।

জাইরার সিদ্ধান্তে নাখোশ তসলিমা নাসরিন : আমির খানের বলিউড ব্লকবাস্টার ‘দঙ্গল’ সিনেমা দিয়ে বলিউডে পা রেখেছেন কাশ্মীরের মেয়ে জাইরা ওয়াসিম। এরপর আমিরের ‘সিক্রেট সুপারস্টার’ ছবিতে অভিনয় করে খুব অল্প সময়েই দর্শকের মন জয় করে নেন ১৮ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী। তবে ‘ধর্মীয় কারণে’ বলিউডকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

জাইরার সিদ্ধান্তের আপত্তি জানিয়ে ভারতে নির্বাসিত বাংলাদেশি লেখিকা তসলিমা নাসরিন টুইট করে লিখেছেন, ‘বলিউডের মেধাবী শিল্পী জাইরা এখন সিনেমা ছাড়তে চাইছে। কারণ অভিনয়ের কারণে আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস নষ্ট হচ্ছে। এ কেমন নির্বোধের মতো নেয়া সিদ্ধান্ত! মুসলিমদের কতো মেধাকে এমন জোরপূর্বক বোরখার অন্ধকারে ঢেকে দেয়া হচ্ছে।‘

বলিউড ছাড়ার কথা জানিয়ে ফেসবুক স্ট্যাটাসে জায়রা ওয়াসিম লিখেছেন, ‘৫ বছর আগে আমি আমার জীবন একদম বদলে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। সিদ্ধান্তটি আমার সামনে জনপ্রিয়তার দরজা খুলে দিয়েছিল। আমাকে ইয়ুথ রোল মডেল হিসেবে দেখা হচ্ছিল। কিন্তু আমি যা হতে চেয়েছিলাম, এটা তা নয়। আমার সাফল্য, ব্যর্থতার ধারণার সঙ্গে এটা মেলে না।

ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক ভালোবাসা, সমর্থন এবং প্রশংসা পেলেও এটা নীরবে এবং অনিচ্ছাকৃতভাবেই তাকে ‘ইমান’ থেকে সরিয়ে ফেলছে। ধর্মের সঙ্গে তার সম্পর্কটাকে হুমকির মুখে ফেলছে। তাই তিনি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

অভিনয় ছাড়ার ঘোষণায় সমালোচিত জাইরা : বলিউড অভিনেত্রী জাইরা ওয়াসিম ইমান নষ্ট হওয়ার কারণে বলিউড ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সম্প্রতি তার ফেসবুক পেজে একটি দীর্ঘ পোস্টে এমনটাই জানিয়েছেন দঙ্গল কন্যা জায়রা। বলিউডে তার ক্যারিয়ার মাত্র পাঁচ বছরের হলেও ইতিমধ্যেই কর্মজীবনে পেয়েছেন প্রচুর সাফল্য। পেয়েছেন জাতীয় পুরষ্কারও।

সুপারস্টার আমির খানের ‘দঙ্গল’ সিনেমায় অভিনয় করে রাতারাতি তারকা বনে যান জাইরা ওয়াসিম। সেই থেকে তিনি দঙ্গলকন্যা নামেই পরিচিত। পরের ছবিতে আবারো জুটি বাঁধেন আমির খানের সঙ্গে। ‘সিক্রেট সুপারস্টার’ করে আবারো সবার নজর কাড়েন। আগামীতে মুক্তি পেতে চলা ‘দ্য স্কাই ইজ পিংক’-এ অভিনয় করেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে। আর এটাই হতে পারে বলিউডে তার শেষ ছবি।

কিন্তু কেন এই সিদ্ধান্ত? সেটাই জানালেন নিজের ফেসবুক পেইজে।

‘৫ বছর আগে আমি আমার জীবন একদম বদলে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। সিদ্ধান্তটি আমার সামনে জনপ্রিয়তার দরজা খুলে দিয়েছিল। আমাকে ইয়ুথ রোল মডেল হিসেবে দেখা হচ্ছিল। কিন্তু আমি যা হতে চেয়েছিলাম, এটা তা নয়। আমার সাফল্য, ব্যর্থতার ধারণার সঙ্গে এটা মেলে না।’ কথাগুলো ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন জায়রা।

মাত্র ১৮ বছর বয়সেই জায়রার ঝুলিতে এসেছে অভাবনীয় সাফল্য। ‘দঙ্গল’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য জায়রা ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড, ন্যাশনাল ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড-ন্যাশনাল চাইল্ড অ্যাওয়ার্ড ফর একসেপশনাল অ্যাচিভমেন্ট পেয়েছেন। কিন্তু এই পরিচয়ে বা কাজের ধরনে তিনি খুশি নন, সে-কথা এবার স্পষ্টতই জানিয়েছেন জায়রা।

তিনি আরো লিখেন, কোরআনের ঐশ্বরিক জ্ঞানের মধ্যে আমি তৃপ্তি এবং শান্তি খুঁজে পেয়েছি। প্রকৃতপক্ষে হৃদয় তার সৃষ্টিকর্তার জ্ঞান, তার গুণাবলি, তার করুণা এবং তার আদেশের জ্ঞান অর্জনে শান্তি পায়। মানুষের পছন্দের তালিকায় চলে আসি আমি। যুবসমাজের প্রতীক হিসাবেও আমাকে নানাদিক দিয়ে চিহ্নিত করা হয়। আমার এই যাত্রা অনেক মুশকিলে ভরা ছিল, আমি আমার অন্তরআত্মার সাথে লড়েছি ওই দিনগুলোতে। ছোট জীবনে এত বড় লড়াই আমি লড়তে পারব না। আমি সবেমাত্র নিজের চিন্তাভাবনা প্রকাশ করা শুরু করেছিলাম কিংবা কাজ করছিলাম কিন্ত এখন মনে হচ্ছে এই জায়গাটা আমার জন্য নয়। এটা ভালোবাসার জায়গা ছিল কিন্তু তার মাঝেও অনেকে আমাকে আলাদা করে রেখেছেন। কিন্তু নিজের কাজ চালানোর আমি যতই চেষ্টা করি এই পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় আমার ধর্ম। আর এই জন্য বলিউড থেকে আমার সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করছি। আমি অনেক ভেবে চিন্তে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

কিন্তু হঠাৎ জাইরার এমন সিদ্ধান্ত মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে তার ভক্তদের।

আর এমন সিদ্ধান্তে সমালোচনার মুখেও পড়তে হয়েছে জাইরাকে। জাইরার সিদ্ধান্তে নাখোশ হয়েছেন অভিনেত্রী রাভিনা ট্যান্ডন। তাকে তিরস্কার করে টুইটারে রাভিনা বলেন, জাইরা ‘অকৃতজ্ঞ হলে তাতে যায় আসে না।’। তিনি আরো বলেন, জাইরা যে মত প্রকাশ করেছেন, তা তার কাছেই রাখা উচিত ছিল।

এছাড়া তসলিমা নাসরিন টুইট করে জাইরার সিদ্ধান্তের আপত্তি জানিয়েছেন। টুইটারে তিনি লিখেন, বলিউডের মেধাবী শিল্পী জাইরা এখন সিনেমা ছাড়তে চাইছে কারণ অভিনয়ের কারণে আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস নষ্ট হচ্ছে। এ কেমন নির্বোধের মতো নেয়া সিদ্ধান্ত! মুসলিমদের কত মেধাকে এমন জোরপূর্বক বোরখার অন্ধকারে ঢেকে দেওয়া হচ্ছে।

যদিও জাইরা সমালোচনার পাশাপাশি পাশেও পেয়েছেন অনেককে।

সামাজিক মাধ্যমে কাশ্মীরের মেয়ে জাইরার পাশে দাঁড়ান জম্মু ও কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ। জাইরার সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এটা ওর জীবন, যাতে সে সন্তুষ্ট হয়, সে তা-ই করবে।’

তবে যদি সত্যিই অভিনয় ছেড়ে দেন জাইরা তাহলে বলিউড হারাবে আরো এক প্রতিভাবান অভিনেত্রীকে। প্রমাণিত হবে, রুপালি দুনিয়ার সোনালি আলোর পেছনে সত্যিই গভীর অন্ধকার লুকিয়ে আছে।



মন্তব্য চালু নেই