মেইন ম্যেনু

হুতিদের ড্রোন হামলার পর সৌদিতে তেল সরবরাহ বন্ধ

সৌদি আরবের দুটি পাম্পিং স্টেশনে মঙ্গলবার হুতি বিদ্রোহীদের ড্রোন হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ওই পাইপলাইন দুটি থেকে তেল সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়েছে।

মঙ্গলবার সশস্ত্র ড্রোনের মাধ্যমে চালানো হুতি বিদ্রোহীদের ওই হামলায় ৮ ও ৯ নম্বর স্টেশনে আগুন ধরে যায়।

এ হামলার পরিপ্রেক্ষিতে সৌদি আরবের সবচেয়ে বড় তেল সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান আরমাকো তেল সরবরাহ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে।

সৌদি আরবের জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল ফালিহ জানান, পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের তেলক্ষেত্র ইয়ানবু বন্দরের দুটি পাম্পিং স্টেশনকে লক্ষ্য করে হুতি বিদ্রোহীরা সশস্ত্র ড্রোন হামলা চালায়।

এতে ওই দুটি পাম্পিং স্টেশনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তবে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে চলে আসায় বড় ধরনের কোনো ক্ষতি হয়নি।

এদিকে পাম্পিং স্টেশনে ড্রোন হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সৌদি আরব।

এ হামলাকে ভীরুতা আখ্যা দিয়ে দেশটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ইরানের সমর্থনপুষ্ট হুতিদের এ ধরনের হামলা তাদের বিরুদ্ধে জোরালো অবস্থান নেয়ার বিষয়টিকে স্পষ্ট করেছে।

সৌদি জ্বালানিমন্ত্রী খালিদ আল ফালিহ বলেন, উপসাগর ও সৌদি আরবে সম্প্রতি যে হামলা হয়েছে, তা কেবল আমাদের দেশকেই নয়, বিশ্বকে লক্ষ্যবস্তু বানানো হয়েছে। এটি বিশ্বে তেল সরবরাহের জন্য বড় ধরনের একটি হুমকি।

অন্যদিকে ড্রোন হামলা সফল হয়েছে, দাবি করে হুতি মুখপাত্র ইয়াহয়া সারি বলেছেন, সাতটি ড্রোনের মাধ্যমে সৌদি আরবের পাম্পিং স্টেশনগুলোকে লক্ষ্যবস্তু বানানো হয়েছে। এটি একটি সফল অপারেশন ছিল।

এ হামলায় সৌদি সরকারের লোকজনও সহায়তা করেছে জানিয়ে হুতি মুখপাত্র বলেন, এ হামলা চালানোর ক্ষেত্রে সৌদি সরকারের লোকজনও আমাদের সহায়তা করেছে। তারা আমাদের নিয়মিত বিভিন্ন তথ্য দিয়ে থাকে।



মন্তব্য চালু নেই