মেইন ম্যেনু

২৮ বছর পর ফিরলেন নিখোঁজ বাবা

বাবার মৃত্যুবার্ষিকী পালন করতে গিয়ে জানা গেল তিনি বেঁচে আছেন।

পার্শ্ববর্তী জেলাতেই তিনি দিব্যি জীবনযাপন করছেন।

এমনই এক ঘটনা ঘটল ভারতের ত্রিপুরার সিপাহিজলা জেলায়।

ভারতের সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার জানিয়েছে, ২৮ বছর ধরে সুনীল দাস নামে ওই পরিবারের কর্তা নিখোঁজ ছিলেন।

বাবা হয়তো আর বেঁচে নেই এমন ধারণায় হিন্দু রীতি অনুযায়ী বাবার মৃত্যুবার্ষিকী করার সিদ্ধান্ত নেয়।

মায়ের মৃত্যুবার্ষিকীর দিনই বাবার শ্রাদ্ধ করা হবে এমন সিদ্ধান্ত নেয় তারা। সে জন্য পুরোহিতের সঙ্গে কথাও হয় তাদের।

এ বিষয়ে প্রতিবেশীদের নিমন্ত্রণ জানানো হলে ওই ব্যক্তির ছবি দেখে পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে আসা এক অতিথি জানান, তিনি বেঁচে আছেন। পার্শ্ববর্তী জেলার কমলপুরে মোটরস্ট্যান্ডে থাকেন তিনি।

সিপাহিজলা থানার পুলিশসূত্রে জানা গেছে, ত্রিপুরার সিপাহিজলা জেলার সোনামুড়া মহকুমার নিদয়াতে পরিবার নিয়ে থাকতেন সুনীল দাস।

১৯৯১ সালে এক প্রতিবেশীর সঙ্গে ঝগড়ায় আহত হয়ে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরার পথে গাড়ি থেকে নেমে উধাও হয়ে যান তিনি।

এর পর দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে তাকে আর খুঁজে পায়নি পরিবার।

এ বিষয়ে সেই সময় স্থানীয় থানায় নিখোঁজের ডায়েরি করা হয় বলে জানায় সিপাহিজলা থানা পুলিশ।

সুনীল দাসের বড় ছেলে গোপাল দাস বলেন, ‘পুলিশ কোনো খোঁজ দিতে পারেনি। বাবাকে আমরা বাংলাদেশে গিয়েও খুঁজেছি।,

২৮ বছর পর বাবাকে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা ছেলেমেয়েরা।



মন্তব্য চালু নেই