মেইন ম্যেনু

৭ কলেজ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যুক্ত হচ্ছে ছাত্রলীগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত সরকারি ৭ কলেজ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সঙ্গে এবার যোগ দিচ্ছে ছাত্রলীগ। যৌক্তিক দাবি আদায়ে এসব কলেজ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছাত্রলীগের একাধিক নেতাকর্মী।

ফলাফল প্রকাশসহ ৫ দফা দাবিতে আজ (সোমবার) ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। বৈঠক শেষে পরবর্তী কর্মসূচির কথা জানান তারা।

জানা গেছে, ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে সমর্থন জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। তারা বলেছে, উপাচার্যের সঙ্গে আজকের (সোমবার) বৈঠক ফলপ্রসূ না হলে ছাত্রলীগও মাঠে নামবে।

আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারী কবি নজরুল সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী ফয়জুর মেহেদী বলেন, আমরা আজ (সোমবার) দুপুরে ঢাবি উপাচার্য স্যারের সঙ্গে বৈঠক করব। সেখানে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতারাও উপস্থিত থাকতে পারেন। আশা করছি, উপাচার্য আমাদের দাবিগুলো মেনে নেবেন।

আন্দোলনের অগ্রভাগে থাকা ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী ওমর ফারুক বলেন, আমাদের পিঠ দেওয়ালে ঠেকে গেছে। আমরা আর ধৈর্য ধরতে পারছি না। আজকের (সোমবার) বৈঠকে যদি ফলপ্রসূ কোনো সিদ্ধান্ত না হয়, তাহলে আমরা আরও কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হব।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ছাত্রলীগে যুক্ত হওয়ার বিষয়টি সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগও নিশ্চিত করেছেন। জাগো নিউজকে তিনি বলেন, আমরা চাই সাত কলেজের সমস্যার সমাধান হোক। তাই বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পাশে রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমরাই আজ (সোমবার) শিক্ষার্থীদের নিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনায় বসব। এরপর শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গেও সাক্ষাৎ করা হবে। আশা করছি, সাত কলেজ শিক্ষার্থীদের সমস্যার সমাধান হবে।

উল্লেখ্য, ২০১১-১২ সেশনের অনার্স চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা গত মাসে অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা চলাকালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আলাদা হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হয় ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাংলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ।

এরপর থেকে এসব কলেজের ফল প্রকাশের দায়িত্ব পায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন। কিন্তু পরীক্ষার ৯ মাস পার হলেও এখনও ফল প্রকাশ করা হয়নি। গত ৩ মাস ধরে বিভিন্নভাবে আন্দোলন করে আসছে এসব কলেজের শিক্ষার্থীরা।






মন্তব্য চালু নেই