মেইন ম্যেনু

৮ দিনের সফরে রাশিয়ার শীর্ষ ব্লগাররা বাংলাদেশে

সোমবার বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় পা রেখেছেন রাশিয়ার শীর্ষ চার ব্লগার। বাংলাদেশে রাশিয়ার পর্যটন সম্ভাবনা এবং দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কে নতুন মাত্রা যোগ করতে রাশিয়ার ওই চার ব্লগার বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রকল্প নিয়ে এখানে কাজ করবেন।

তাদের আট দিনের সফরের আয়োজন করেছে রোসাটম স্টেট অ্যাটোমিক এনার্জি কর্পোরেশনের প্রকৌশল শাখা এএসই গ্রুপ অব কোম্পানি। এটি রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের নির্মাণ প্রতিষ্ঠান।

ওই চার ব্লগার বাংলাদেশের বেশ কিছু পর্যটন এলাকা পরিদর্শন করবেন। তারা বাংলাদশের এসব পর্যটন এলাকার মানুষের জীবন-যাপন পদ্ধতি, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য সম্পর্কে পরিচিত হবেন। পরে তারা তাদের ব্লগে এসব বিষয় নিয়ে তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরবেন।

এই সফরে তারা টাঙ্গাইল, মহাস্থানগড়, পাহাড়পুর, বাগেরহাট, সুন্দরবন, চট্টগ্রাম, বান্দরবানসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করবেন। তাছাড়া ব্লগারদের ওই দলটি নির্মাণাধীন রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পও পরিদর্শন করবেন। যেটা বাংলাদশে-রাশিয়া বন্ধুত্বের প্রতীক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এএসই গ্রুপ অব কোম্পানির আন্তর্জাতিক প্রকল্প বিষয়ক সিনিয়র সহ-সভাপতি আলেকজান্ডার খাজিন বলেন, রাশিয়ার শীর্ষ এই চার ব্লগারের সফর বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের স্বাক্ষী হিসেবে থাকবে। বাংলাদশের দ্রুত আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের অংশ হতে পেরে আমরা আনন্দিত। বাংলাদেশ যে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ হওয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে আমরা বিশ্বাস করি যে, রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র সেই লক্ষ্য পূরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

বাংলাদেশের একটি প্রথম সারির বিমান চলাচল এবং পর্যটন বিশেষজ্ঞ কাজি ওয়াহিদুল ইসলাম বিমানবন্দরে ওই ব্লগারদের অভ্যর্থনা জানিয়ে বলেন, রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাংলাদেশের উদিয়মান পর্যটন শিল্পে বিশেষ একটি মাত্রা যোগ করবে। আমি আশা করি আমাদের রাশিয়ান অতিথিরা আমাদের দেশের একটা ইতিবাচক ভাবমূর্তি তুলে ধরবেন, যা ভবিষ্যতে বাংলাদেশে পর্যটকদের আগমনের ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করবে।

বাংলাদেশে আসা ওই চার ব্লগার হলেন, ওলেগ ক্রিকেট, দিমিত্রি লেজিকিন, ইরিনা গোল্ডম্যান এবং নিকিতা তেতেরেভ। সব মিলিয়ে ইন্সটাগ্রামে তাদের ১৬ লাখ ফলোয়ার রয়েছে।

ওলেগ ক্রিকেটের প্রায় ১০ লাখ ফলোয়ার রয়েছে ইন্সটাগ্রামে। কিছু গণমাধ্যমের সংবাদ অনুযায়ী, তিনি রাশিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় ভ্রমণ বিষয়ক ব্লগার। দিমিত্রি লেজিকিন একজন ফ্যাশন ব্লগার। এছাড়া নিকিতা তেতেরেভ একজন পেশাদার চিত্রগাহক।

ইরিনা গোল্ডম্যান বলেন, বাংলাদেশে সফরের বিষয়ে আমি খুব অস্থির হয়ে আছি। থাইল্যান্ডের পর এটা আমার এশিয়ার দ্বিতীয় কোন দেশে সফর। গত ছুটিতে আমি ইউরোপ সফরে বেরিয়েছিলাম। আমি খুবই বিরক্ত হয়েছি এবং নতুন কিছু খুঁজছিলাম। বাংলাদেশ আমার কাছে একেবারেই অপরিচিত একটি গ্রহের মতো। আমি আশা করছি এই সফর আমার জন্য একটি অনুপ্রেরণার উৎস হবে। আমি বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে দেখা করতে চাই, তারা কিভাবে বসবাস করে তা দেখতে চাই।



মন্তব্য চালু নেই