আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামবাংলার ঐতিহ্য ‘ঢেঁকি’

‘ও ধান ভানিরে ঢেঁকিতে পাঠ দিয়া, ঢেঁকি নাচে আমি নাচি হেলিয়া দুলিয়া, ওধান ভানিরে।’ -এমনি করে আরো অনেক গান গেয়ে একটা সময়ে ধান ভানতে দেখা যেত, গ্রামের বাড়িতে ‌‌‌বাড়িতে মহিলাদের।

কালের বিবর্তনে আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে যেতে বসেছে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ‘ঢেঁকি’।

এক সময় ঢেঁকির ঢাপুর ঢুপুর শব্দে মুখরিত থাকতো পাড়া মহল্লা। নবান্নের নতুন ধান উঠার পর শুরু যেত উৎসবের আমেজ। বিভিন্ন রকমের পিঠা তৈরি করতে ধান মাড়াই করে, গুঁড়া কোটা, খাওয়ার জন্য চাউল প্রস্তত করার জন্য সকাল থেকে ‌‌‌‌‌গভীর রাত পর্যন্ত চলতো ঢেঁকি ঘরে আনাগোনা। ঢেঁকিতে ধান দিয়ে তৈরি করা হতো সুস্বাদু চিড়া।

গ্রামের অনেক গরীব মানুষের সংসার চলতো ঢেঁকিতে ধান ভেনে, চিড়া কুটে, চাউলের‌ আটা কুটে, ছাতু কুটে।

আধুনিক পদ্ধতিতে এখন‌ এই মাড়াই গুলো বিভিন্ন ধরনের মেশিন দিয়ে খুব সহজেই মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছে। শহরের মতো গ্রামেও লাগতে শুরু করেছে আধুনিকতার ছোঁয়া। যার ফলশ্রুতিতে হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামবাংলার ঐতিহ্য ঢেঁকি।



মন্তব্য চালু নেই