শিরোনাম:

আপন জুয়েলার্সের ৫ শাখায় অভিযান

আপন জুয়েলার্সের গুলশানের দুটি, উত্তরা, মৌচাক ও সীমান্ত স্কোয়ারের শাখায় অভিযান চালিয়েছে শুল্ক গোয়েন্দারা।

‘ডার্টি মানি’র অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে রোববার সকাল থেকে অভিযান পরিচালনা করে শুল্ক গোয়েন্দার পৃথক চারটি টিম। অভিযানে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ ভ্যাট কর্মকর্তারা ও র‌্যাবের ফোর্স অংশ নিয়েছে।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান এসব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, বনানীতে সাম্প্রতিক ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ ও তার ছেলে শাফাত আহমেদের ‘ডার্টি মানি’র তথ্য গণমাধ্যমে প্রকাশের পর শুল্ক গোয়েন্দার পক্ষ থেকে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর মধ্যে শুল্ক গোয়েন্দা বাংলাদেশ ব্যাংককে তাদের আর্থিক লেনদেনের যাবতীয় তথ্যাদি তলব করেছে। আজকের অভিযানে স্বর্ণ ও ডায়মন্ডের বৈধ উৎস ও পরিশোধেযোগ্য শুল্ক-কারাদি সম্পর্কে খোঁজ নেওয়া হবে। অভিযান শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

এদিকে শুল্ক গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, ইতিমধ্যে গুলাশানের দুটি শাখায় মূল অভিযান শেষ হয়েছে। বর্তমানে উত্তরা, মৌচাক ও সীমান্ত স্কোয়ারের স্বর্ণের শাখায় অভিযান চলছে।

গত ২৮ মার্চ দ্য রেইনট্রি হোটেলে জন্মদিনের পার্টিতে আমন্ত্রণ করে দুই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাত ও তার বন্ধুরা। গত শনিবার রাতে ভুক্তভোগীদের একজন বনানী থানায় আসামিদের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। সাফাত ছাড়াও ওই মামলার অন্য আসামিরা হলেন- নাঈম আশরাফ (৩০), সাদমান সাকিফ (২৭), সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল (২৬) ও অজ্ঞাতনামা দেহরক্ষী।