শিরোনাম:

উদারপন্থি মুনই হলেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট

দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগে সাবেক প্রেসিডেন্টের পদত্যাগের পর নতুন নেতা হিসেবে উদারপন্থি ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী মুন জে-ইনকে বেঁছে নিলেন দক্ষিণ কোরিয়ার জনগণ। মঙ্গলবার (৯ মে) দেশটিতে দিনব্যাপী নির্বাচন শেষে বেসরকারী ফলাফলে তাকে প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করা হয়।

৬৪ বছর বায়সী মুন মানবাধিকার আইনজীবী এবং উদারপন্থি হসেবেই পরিচিত। তিনি ঘোষণা দিয়েছেন দেশটিতে যে বিভেদ চলছে তা মিটিয়ে ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা করবেন।

রাজধানী সিউলের গোয়াংওয়ামুন স্কয়ারে উচ্ছ্বসিত সমর্থকদের উদ্দেশে মুন বলেন, আমিই সব দক্ষিণ কোরীয় নাগরিকের প্রেসিডেন্ট হব।

স্থানীয় টিভি স্টেশন পরিচালিত বুধ ফেরত জরিপের ফল উল্লেখ করা হয়, এখন (বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা) পর্যন্ত প্রধান বিরোধী দল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী মুন জায়ে-ইন পেয়েছেন ৪১ দশমিক ৪ শতাংশ ভোট এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রক্ষণশীল প্রার্থী হং জুন-পায়ো পেয়েছেন ২৩ দশমিক ৩ ভোট।

পদত্যাগে বাধ্য হওয়া সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক জেয়ুন হাই এর নীতির বিপরীতে মুন জায়ে-ইন উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ বৃদ্ধি করতে চান। ক্ষমতায় থাকাকালে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে প্রায় সব সম্পর্ক ছিন্ন করেছিলেন পার্ক।

দক্ষিণ কোরিয়ার বিশেষ বাহিনীর সদস্য থেকে মানবাধিকার আইনজীবী বনে যাওয়া মুন মঙ্গলবার সকালে ভোট দিতে ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার পর সাংবাদিকদের বলেন, আমার বিশ্বাস শুধু আমার দল বা আমি নয় বরং পুরো দেশ অধীর আগ্রহে সরকারের পরিবর্তন চাইছে।

২০১২ সালে এই মুনকে হারিয়েই দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন পার্ক জেউন হাই।