মেইন ম্যেনু

এবার ইরাক থেকে তেল আমদানি করবে সৌদি আরব

সৌদি আরবের আরামকো তেল স্থাপনার ওপর ড্রোন হামলার পর তেলের উৎপাদন অর্ধেকে নেমে যাওয়ায় প্রতিবেশী ইরাক থেকে তেল আমদানির পদক্ষেপ নিয়েছে সৌদি আরব। মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল গতকাল বৃহস্পতিবার এ খবর দিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি আরব তার অভ্যন্তরীণ শোধনাগারগুলোর চাহিদা পূরণের জন্য ইরাকের কাছ থেকে দুই কোটি ব্যারেল তেল সরবরাহের দাবি জানিয়েছে।

পার্সটুডে বলছে, আন্তর্জাতিক তেল বাজারের কয়েকটি সূত্র ওয়ালস্ট্রিট জার্নালকে বলেছে, ইয়েমেনের হুথি সমর্থিত সেনাদের ড্রোন হামলায় তেল উৎপাদন অর্ধেকে নেমে যাওয়া সত্ত্বেও বিশ্ববাজারে এক নম্বর তেল উৎপাদনকারী দেশ হিসেবে নিজের সুনাম ধরে রাখা সৌদি আরবের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নির্ভরযোগ্য সরবরাহকারী হিসেবে সুনাম অক্ষুন্ন রাখার জন্য বিশ্বের সর্ববৃহৎ তেল রপ্তানিকারক দেশ সৌদি আরব অন্তত প্রতিবেশী একটি দেশ থেকে বাড়তি তেল আমদানি করে তা আন্তর্জাতিক বাজারে সরবরাহ করতে চায়।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল এর আগে ইঙ্গিত দিয়েছিল যে, সৌদি আরবের আরামকো কোম্পানি ইরাকের জাতীয় তেল সংস্থার কাছে দুই কোটি ব্যারেল তেল সরবরাহের প্রস্তাব দিয়েছে।

এ খবর প্রকাশের পর গতকাল ইরাকের রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি তা অস্বীকার করেছে এবং আরামকোও বলেছে, ইরাক থেকে তেল আমদানির কোনো পরিকল্পনা তাদের নেই।

এদিকে, গণমাধ্যমের খবর থেকে জানা যাচ্ছে, সৌদি আরবের তেল উৎপাদন কমে যাওয়ার পর ভারত এখন আমেরিকার ওপর চাপ সৃষ্টি করেছে। দিল্লি বলছে, তারা ইরান থেকে তেল আমদানি করতে চায়।



মন্তব্য চালু নেই