মেইন ম্যেনু

এমপির ইফতার বর্জন করলেন দলীয় নেতাকর্মীরা

সিরাজগঞ্জ: নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়নের অভিযোগ এনে সিরাজগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মজিদ মন্ডলের ইফতার মাহফিল বর্জন করলেন এনায়েতপুর থানার ৫ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

চার বছরে দলের নেতা-কর্মীদের অবমুল্যায়ন ও উন্নয়ন কর্মকান্ডে সমন্বয়হীনতার অভিযোগে ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা বুধবার (২১ জুন) সন্ধ্যায় ওই ইফতার মাহফিল বর্জন করেন।

স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানান, বুধবার সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ে ইফতার ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেন থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সিরাজগঞ্জ-৫ আসনের এমপি আলহাজ্ব আব্দুল মজিদ মন্ডল। কিন্তু সর্বক্ষেত্রে নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়নের অভিযোগ এনে ওই ইফতার মাহফিল বর্জন করেন ৫টি ইউনিয়নের আ.লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

ইফতার মাহফিলে ১২শ’ লোকের আয়োজন করা হলেও উপস্থিতি ছিল অর্ধেকেরও কম।

দৌলতপুর আঞ্চলিক ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আব্দুল হামিদ মন্ডল, স্থল ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম, খুকনী ইউনিয়নের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান মুল্লুক চাঁদ মিয়া, সদিয়া চাঁদপুর ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি ক্ষোভের সঙ্গে জানান, গত প্রায় ৪ বছর ধরে এমপি মজিদ মন্ডল এলাকায় চোখে পড়ার মত কোনো উন্নয়ন করেননি। থানা পর্যায়ের গুটিকয়েক নেতা ছাড়া ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের মুল্যায়ন করেননি।

রাজনৈতিক কর্মসূচী বা সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডে ধনাঢ্য এ সংসদ আমাদের সঙ্গে কোনোরুপ সমন্বয় করেন না। এসব কারণেই আমরা তার ওই ইফতার মাহফিল বর্জন করেছি।

এনায়েতপুর থানা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি খোরশেদ আলম সরকার ও ছাত্রলীগের সভাপতি নাসিরুল হক জানান, এমপি হওয়ার পর থেকেই তিনি আমাদের অবমূল্যায়ন করে আসছেন। এমনকি ইফতার মাহফিলের দাওয়াত পর্যন্ত আমরা পাইনি। এ কারণে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরাও ওই ইফতার মাহফিলে উপস্থিত হননি।

এ বিষয়ে থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী মাষ্টার জানান, প্রভাবশালী এক নেতার কারণে কিছু কিছু ইউনিয়ন সভাপতি, থানা ছাত্রলীগ ও যুবলীগের সভাপতি ইফতার মাহফিলে উপস্থিত হয়নি। তারপরও আমরা সুষ্ঠুভাবে ইফতার মাহফিল সম্পন্ন করেছি।

বিষয়টি নিয়ে আব্দুল মজিদ মন্ডল এমপি কথা বলতে অনিচ্ছুক বলে জানান তার তার ব্যক্তিগত সহকারী (পি.এ) তাজ উদ্দিন। তিনি ইউনিয়ন আ.লীগের বেশ কজন সভাপতি/সম্পাদক ইফতার মাহফিলে অনুপস্থিত থাকার কথা স্বীকার করেন।



মন্তব্য চালু নেই