শিরোনাম:

কমলাপুরে দ্বিতীয় দিনেও ট্রেনের টিকিট পেতে উপচেপড়া ভিড়

আসন্ন ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে বাংলাদেশ রেলওয়ের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট কিনতে দ্বিতীয় দিনেও রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে টিকিট প্রত্যাশীদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

শনিবার (২ জুলাই) সকালে সরেজমিনে এমন চিত্র দেখা গেছে সকাল ৮টা থেকে ঈদযাত্রার দ্বিতীয় দিনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। এদিন টিকিট পেতে বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই রেলস্টেশনে অবস্থান নিয়েছেন কেউ কেউ। এছাড়াও টিকিট প্রত্যাশীদের একটি অংশ রয়েছেন যারা প্রথম দিন (শুক্রবার) লাইনে দাঁড়িয়েও টিকিট পাননি।

এদিন পুরুষদের পাশাপাশি নারীরাও আগেভাগেই স্টেশনে এসেছেন। ঈদের আগে সড়কপথে অনেক বেশি যানজট থাকবে এমন আশঙ্কায় তারা ট্রেনের টিকিট পেতে আগ্রহী। যাত্রাপথের ভোগান্তি এড়াতে এজন্য আগেই ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে এসেছেন তারা।

এদিকে, টিকিট বিক্রির প্রথমদিন (শুক্রবার) কমলাপুর রেলস্টেশন পরিদর্শন করেন রেল মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। আজ রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন কমলাপুর স্টেশন পরিদর্শনে আসবেন বলে জানা গেছে। শান্তিপূর্ণভাবে টিকিট বিতরণ নিশ্চিত করতে কাজ করছেন রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী ও আনসার সদস্যরা। আর কালোবাজারে টিকিট বিক্রি বন্ধে পুলিশের পাশাপাশি রয়েছে র‌্যাবের উপস্থিতি।

শুক্রবার (১ জুলাই) থেকে ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। ১ জুলাই দেওয়া হয় রেলের ৫ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট, ২ জুলাই দেওয়া হচ্ছে ৬ জুলাইয়ের টিকিট, ৩ জুলাই দেওয়া হবে ৭ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট, ৪ জুলাই দেওয়া হবে ৮ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট এবং ৫ জুলাই দেওয়া হবে ৯ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট।

এছাড়া ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৭ জুলাই থেকে। ওইদিন ১১ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি হবে। ৮ জুলাই ১২ জুলাইয়ের টিকিট, ৯ জুলাই ১৩ জুলাইয়ের টিকিট, ১১ জুলাই ১৪ এবং ১৫ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি হবে। তবে ১১ জুলাই সীমিত কয়েকটি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করবে। ১২ জুলাই থেকে সব ট্রেন চলাচল করবে।