বঙ্গবন্ধু অ্যাডভেঞ্জার উৎসব উদ্বোধন

করোনার ভ্যাকসিন পেতে ভারতকে বিশ্বাস করতে চাই : পররাষ্ট মন্ত্রী

করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন পেতে আমরা ভারতকে বিশ্বাস করতে চাই বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট মন্ত্রী ড. এ.কে আব্দুল মোমেন।

সোমবার (১১ জানু) রাঙ্গামাটি মারী স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু অ্যাডভেঞ্জার উৎসবের উদ্বোধনের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ভারত সরকার বাববার অঙ্গীকার করেছে তারা যখনি ভ্যাকসিন ব্যবহার করবে আমরাও একটি সময় পাবো। এটি ভারতের সর্বোচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্ত। তবে সঠিক কোন সময় পাবো তা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানবেন তারা বলবেন। আমরা অন্যান্য দেশগুলোর সাথেও আলোচনা করেছি তারাও বলেছেন তাদের ভ্যাকসিন হয়ে গেলে আমাদেরকে দেবেন। বাংলাদেশসহ প্রতিবেশী রাষ্ট্র গুলোতে ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়ে ভারত যথেষ্ট আন্তরিক। করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন পেতে বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে। তাই অতিদ্রুত বাংলাদেশ ভ্যাকসিন পাবে বলে আমরা আশাবাদী।’

রোহিঙ্গাদের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে পররাষ্ট মন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণভাবে তাদের দেশে ফেরত পাঠাতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আশাবাদী রোহিঙ্গারা ফেরত যাবে কারণ তারা ফেরত না গেলে তাদের মধ্যে সন্ত্রাসবাদের যদি বিস্তার লাভ করে তাহলে আমাদের জন্যও সমস্যা, মায়নমারের জন্যও সমস্যা, প্রতিবেশী রাষ্টগুলোর জন্যও সমস্যা। এটি ভারত খুব ভালো করে বুঝে, জাপানও খুব ভালো করে বুঝে তাই তারা বলেছে এই ব্যাপারে তারা বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করবে। রোহিঙ্গা নির্যাতন শুধু আমাদের সমস্যা নয় এটি গ্লোবাল সমস্যা তাই অতিদ্রুত এটি সমাধানের জন্য অন্যান্য রাষ্টগুলোকেও এগিয়ে আসতে হবে।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘শুধু মাত্র বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতগুলো মানুষকে আশ্রয় দিয়েছেন। মডেল রিহাব্যলেশন ভাসানচরে ভালো অবস্থানে রাখার জন্য ১ লাখ রোহিঙ্গাদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। দুনিয়ার আর কোথা কি কেউ উদবাস্তুগুলাকে শান্তিতে রেখেছে। ওয়ার্ল্ড মিডিয়া শুড বি প্লড বাংলাদেশ। সেখানে তাদের জন্য সকল সুযোগ সুবিধা রাখা হয়েছে। সেখানে তারা নিরাপদে বসবাস করতে পারবে। তারা মিয়নমারে যেভাবে বিভিন্ন চাষাবাদ করতো সরকার ভাসনচরেও সেই ভাবে চাষাবাদ কারর ব্যবস্থা নিচ্ছে। কিন্তু এই স্থানান্তর নিয়ে একটি মহল ষড়যন্ত্রে চালচ্ছে এই বলে যে ভাসানচর পানি আসলে ভাসানচর ভেসে যাবে।’

তাই সাংবদিকদের বস্তু নিষ্ট সাংবাদের মাধ্যমে সরকারের উদ্যোগ গুলোকে তুলে ধরার জন্য আহবান জানান তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও রাঙ্গামটি সাংসদ দীপংকর তালুকদার, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা এনডিসি, ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নিজামী, ৩০৫ ব্রিগেড রাঙ্গামাটির বিগ্রেডিয়ার জেনারেল ইফতেকুর রহমান পিএসসি, জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশীদ, জেলা পুলিশ সুপার মীর মোদদাছছের হোসেন সহ জাতীয় ও জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী অফিসের কর্মকর্তা গণ।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শত বার্ষিকী উপলক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের আয়োজনে ৫ দিনব্যাপী চলবে বঙ্গবন্ধু অ্যাডভেঞ্জার উৎসব ২০২১। সারাদেশ থেকে ১০০ প্রতিযোগী এই উৎসবে অংশগ্রহণ করছে। এতে রাঙ্গামাটির ২০, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান হতে ১৫ জন করে তিন পার্বত্য জেলার ৫০ জন প্রতিযোগি যার মধ্যে ১৪ জন মহিলা ২৬ জন পুরুষ। ১০০ জন প্রতিযোগির মধ্যে মোট ৪৩ জন নারী বাকী ৫৭ জন পুরুষ হাইকিং, কায়কিং, ট্রেজার হান্ট, ট্রেকিং, জিপ লাইনিং, ট্রেইল রান, ক্যানিওনিং, রোপ কোর্সসহ বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ গ্রহণ করবেন।



মন্তব্য চালু নেই