করোনায় আক্রান্ত ১৮২ আনসার সদস্য

বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ১৮২ সদস্য করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত মারা গেছেন একজন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৯ জন আনসার সদস্য।

শুক্রবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর উপপরিচালক (যোগাযোগ) মেহেনাজ তাবাসসুম রেবিন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ১৫ মে শুক্রবার পর্যন্ত আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের ১৮২ জন সদস্য ও কর্মচারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যা গত বুধবার ছিল ১৭০ জন। আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন বাহিনীর এক উপমহাপরিচালক, ৭৯ জন ব্যাটালিয়ন আনসার, ৯৮ জন অঙ্গীভূত আনসার, একজন মহিলা আনসার, একজন নার্সিং সহকারী, একজন সিগন্যাল অপারেটর ও একজন ভিডিপি সদস্য।

আক্রান্ত সদস্যদের মধ্যে ৬৬ জন ব্যাটালিয়ন আনসার জাতীয় সংসদ ভবনে এবং ৬৭ জন অঙ্গীভূত আনসার সদস্য ঢাকা মহানগর পুলিশের সঙ্গে কর্মরত রয়েছেন। এ ছাড়া বাকিদের কেউ সদর দপ্তর এবং কেউ বিভিন্ন জেলায় কর্মরত রয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে একজন, প্রাতিষ্ঠানিক ও বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ৪৩৫ জন।

এতে আরও বলা হয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতাল, মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, সাজেদা মেডিকেল ও রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে বাহিনীর ১৫৬ জন সদস্য করোনা উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত বাহিনীর আব্দুল মজিদ নামে একজন সদস্য মৃত্যুবরণ করেছেন। তিনি অঙ্গীভূত আনসার (আইডি নম্বর-১৩১৮৯) সদস্য। তার বাড়ি বগুড়ায়। মৃত্যুর আগে তিনি গুলশান বিভাগের ভাটারা থানায় কর্মরত ছিলেন। গত ১১ মে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান।



মন্তব্য চালু নেই