শিরোনাম:

করোনা পজেটিভ ভারতীয় নাগরিককে আটকে দিলো বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন

পঞ্চগড় জেলাধীন তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধায় করোনা পজিটিভ হওয়ার পরও তথ্য গোপন করে ভারতে ফেরার সময় বিকাশ বেপারি (৫৩) নামের এক ভারতীয় নাগরিককে আটকে দিয়েছে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশ। পরে তাকে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

বিকাশ বেপারির বাড়ি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের শিলিগুড়ির কামরাঙ্গাগুড়ি এলাকায়।

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন পুলিশ জানায়, ওই ব্যক্তি ব্যবসায়ী ভিসায় গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ভারত থেকে বাংলাদেশে আসেন। ঢাকার সাভারে তার ভাইয়ের বাড়িতে ছিলেন। শনিবার (২০ মার্চ ২০২১) দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে তিনি বাংলাবান্ধা ইমিগ্রেশন পয়েন্ট দিয়ে দেশে ফিরছিলেন। শুরুতে তথ্য গোপন করলেও করোনা পরীক্ষার কাগজে তার করোনা পজিটিভ দেখতে পেয়ে ইমিগ্রেশন পুলিশ স্বাস্থ্য বিভাগকে বিষয়টি অবহিত করেন। পরে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের মেডিক্যাল টিম বাংলাবান্ধা থেকে তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে এনে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করে। তিনি ১৯ মার্চ নমুনা পরীক্ষার জন্য দিলে ওইদিনই তার করোনা পজিটিভ আসে।

ভারতীয় নাগরিক বিকাশ বেপারীর পাসপোর্ট বই থেকে জানা যায়- বাংলাদেশ এসিসটেন্ট হাই কমিশন, ইন্ডিয়া, গুয়াহাটি থেকে যার ভিসা নং- ৯১/০৩৬১/০২/২১/১৭১৮ কেটাগরি: ‘বি’ এর বাংলাদেশ গমনের ইস্যু কৃত তারিখ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ এবং মেয়াদ উত্তীর্ণ তারিখ ১৭ মার্চ ২০২১ দেখানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে বাংলাবান্ধা ইমিগ্রেশন পুলিশের পরিদর্শক নজরুল ইসলাম বলেন, ইমিগ্রেশন চেকপোস্টে আসার পর ওই ভারতীয় নাগরিকের কথাবার্তা অসংলগ্ন মনে হচ্ছিল। এ ছাড়া তিনি অনেক তথ্য গোপন করছিলেন। পরে আমরা তার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট চাইলে তিনি কাগজ বের করে দেন। সেখানে দেখতে পাই তিনি করোনা পজিটিভ। পরে আমরা স্বাস্থ্য বিভাগকে খবর দেই। ওই ব্যক্তি শুক্রবার তেঁতুলিয়ার সিপাইপাড়া বাজারের একটি আবাসিক হোটেলেও অবস্থান করেছেন।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. রাজ্জাক হোসেন বলেন, ভারতীয় ওই নাগরিককে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তিনি শারীরিকভাবে একটু দুর্বল। এ ছাড়া অন্য কোনো উপসর্গ নেই। আর ওই ব্যক্তি যাদের সংস্পর্শে এসেছেন আমরা তাদেরও করোনা পরীক্ষার করার চেষ্টা করছি।



মন্তব্য চালু নেই