মেইন ম্যেনু

কলারোয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজছাত্র গুরুতর আহত

মিলন দত্ত, কলারোয়া, সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার পৌর সদরের পাকাপুল এলাকায় মোটর সাইকেল ও ইঞ্জিন ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক কলেজ ছাত্র গুরুতর আহত হয়েছে।

বুধবার (০৫ জুন) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।আহত কলেজ ছাত্র উপজেলার ধানদিয়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মো,ওসমান গনির পুত্র বাপ্পী। সে কলারোয়ার শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রি কলেজের বিএম শাখার ছাত্র।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বাপ্পী ও তার বন্ধু আজমির হোসেন মোটরসাইকেল যোগে ধানদিয়ায় যাচ্ছিলো। কলারোয়া বাজারের পাকা পুল পার হওয়ার সময় অপর দিক থেকে আসা কলারোয়া গামী একটি দ্রুত গতির বেপরোয়া ইঞ্জিন চালিত ভ্যান মোটরসাইকেলের পিছনে বসে থাকা বাপ্পীকে সজোরে ধাক্কা দেয়। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তার অবস্থার ক্রমাবনতি হলে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কতৃপক্ষ তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ প্রদান করেন।

মোটরসাইকেল চালক আজমির জানান, কলারোয়া পাকাপুল পার হওয়ার সময় অপর দিক থেকে আসা ইঞ্জিন ভ্যান আমাদের সজোরে ধাক্কা দেয় ।আমি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করে মোটরসাইকেল বামে টার্ন করি কিন্তু তাতেও রক্ষা হয় নি।

এ ব্যাপারে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক কর্মকর্তা ডা. শফিকুর রহমানেরকাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কলেজ ছাত্র বাপ্পীর হাঁটুর আঘাত খুব মারাত্মক। এ সংক্রান্ত চিকিত্সার কোনো সরঞ্জামাদী কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেই। তাই তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছি।

এ ব্যাপারে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মী মিলন দত্ত অভিযোগ করে বলেন, বর্তমানে যানবাহনের এক ভয়ংকর নাম ইঞ্জিন ভ্যান বা নছিমন। যার বেপরোয়া গতি ও কালো ধোঁয়ার ভয়াল গ্রাসের কথা প্রায়ই শোনা যায়। একদিকে এই যানবাহন যেমন পরিবেশের ক্ষতি করছে তেমনি জন জীবনের জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ ক্ষেত্রে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে নৃশংস ভাবে দূর্ঘটনায় পতিত হবে আরো মানুষ।



মন্তব্য চালু নেই