মেইন ম্যেনু

কোটালীপাড়ায় দুই শিক্ষক লাঞ্চিত, প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের পরিক্ষা বর্জন!

জাকারিয়া শেখ, কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) থেকেঃ বাংলা প্রভাষক ও গণিতের সহকারী শিক্ষককে লাঞ্চিতের প্রতিবাদে ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ ও অনিষ্টকালের জন্য পরিক্ষা বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা। ঘটনাটি ঘটেছে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার কুশলা নেছারিয়া সিনিয়র ফাযিল (বি.এ) মাদ্রাসায়।

মাদ্রাসা সূত্রে জানা গেছে, কুশলা গ্রামের শাহ আলম শেখের ছেলে এলাকার চিহ্নত মাদক সেবনকারী ও বখাটে নাজমুল শেখ (২৮) গণিতের সহকারী শিক্ষক মোঃ ইয়াদুল ইসলামকে গত রবিবার মাদ্রাসার লাইব্রেরী কক্ষে প্রবেশ করে লাঞ্চিত ও দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়। এতে বাংলা প্রভাষক মোঃ কামরুল ইসলাম প্রতিবাদ করলে তাকেও লাঞ্চিত করে নাজমুল।

এসময় অন্যান্য শিক্ষকেরা বাধা দিলে তাদেরকেও দেখে নেওয়ার হুমকি দেয় নামজুল। সুত্র জানায়, নাজমুলের বোন রহিমা খানম দাখিল (২০১৭) পরিক্ষায় গণিতে সি গ্রেরেট পেয়ে পাস করে। গণিতে কম নম্বর পাওয়ায় ওই শিক্ষককে লাঞ্চিত করে নাজমুল।

এবিষয়ে নাজমুলের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এঘটনার বিচার দাবীতে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে অর্ধ-বার্ষিকী পরিক্ষা বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা। একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, গত রবিবার আমাদের বাংলা প্রভাষক ও গণিতের সহকারী শিক্ষককে লাইব্রেরীতে প্রবেশ করে লাঞ্চিত করে এলাকার চিহ্নত মাদক সেবনকারী ও বখাটে নাজমুল। এঘটনার বিচার নিয়ে তালবাহানা শুরু করে অধ্যক্ষ মোঃ বাকের হোসেন।

এঘটনার সুষ্ঠ বিচার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের পরিক্ষা বর্জন কর্মসূচি চলবে। অধ্যক্ষ মোঃ বাকের হোসেনের সাথে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। বিস্বস্ত একটি সূত্র জানা গেছে, এঘটনার বিচারের জন্য আগামী শনিবার ম্যানেজিং কমিটির জরুরী সভার আহব্বান করা হয়েছে।



মন্তব্য চালু নেই