শিরোনাম:

খবর পড়তে গিয়ে নিজেই খবর, চোখে বাঁধভাঙা জল…

স্বভাবসূলভ সংবাদ পাঠ করছিলেন ইসরায়েলের সরকারি টেলিভিশন ‘চ্যানেল ওয়ান’-এর উপস্থাপিকা গেউলা ইভেন। হঠাৎ তার হাতে এলো একটা খবর, নিজেকে আর সামলে রাখতে পারেননি। বাঁধ মানেনি চোখের জল।

পরক্ষণে নিজেকে কিছুটা সমালে নিয়ে কাঁপা গলায় তিনি বললেন, ‘একটা ব্রেকিং নিউজ আছে। পার্লামেন্টে বিবৃতি… না আসল কথাটা হলো, আজ রাতেই আমাদের খবরের অনুষ্ঠান শেষ হয়ে যাচ্ছে। এটা তার শেষ পর্ব। তাই অনুষ্ঠানের বাকি অংশ অপ্রাসঙ্গিক।’

অশ্রুসিক্ত চোখে তিনি আরও বলে যান, ‘অনেক মানুষ কাজ হারাবেন। আশা করি, সকলে নতুন চাকরি খুঁজে পাবেন।’

নিজের শো বন্ধ হয়ে যাওয়ার সংবাদ পাঠের এই ৫৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ক্লিপে ফুটে উঠেছে ওই উপস্থাপিকার বিপন্ন মুখ। টেলিভিশনটির ফেসবুক পেজে ৯ মে সেই ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করা হয়। তার পর থেকে কয়েক লাখ বার সেটি দেখা হয়েছে। শেয়ারও হয়েছে দুই-তিন হাজার।

এক ব্রিটিশ চ্যানেলের দাবি, ইসরায়েলি চ্যানেলটি যে কিছু দিনের মধ্যেই বন্ধ করে দেওয়া হবে, তার ইঙ্গিত আগে পেয়েছিলেন কর্মীরা। কিন্তু এ ভাবে সেটা হবে, কেউ ভাবতে পারেননি।

ইসরায়েলের একটি সংবাদপত্রের মতে, কর্মীদের ধারণা ছিল অন্তত ১৫ মে পর্যন্ত চ্যানেল চালু থাকছে। কিন্তু তার আগেই হঠাৎ সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়। রাতের খবর সম্প্রচারের মধ্যেই ওই ঘোষণা। শেষ বেলায় সব কর্মী ক্যামেরার সামনে হাজির হয়ে কান্নায় ভেঙে পড়লেও জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে শেষ করেন শো।

আর একটি ব্রিটিশ দৈনিকের দাবি, রাজনৈতিক লড়াইয়ের কারণেই ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু চ্যানেলটি বন্ধ করে দিলেন। সংস্কারের অঙ্গ হিসেবেই চ্যানেল বন্ধ করা হচ্ছে বলে দাবি নেতানিয়াহুর। এর বিকল্প প্রতিষ্ঠান তৈরি করা হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।