শিরোনাম:

খালেদা উস্কানি না দিলে জঙ্গিবাদের উত্থান হতো না : তোফায়েল

খালেদা জিয়া উস্কানি না দিলে বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের উত্থান হতো না বলে দাবি করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেছেন, ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জঙ্গিবাদ দমনে সক্ষম হয়েছে।’

বুধবার সকালে রাজধানীর বৌদ্ধ মন্দিরে বুদ্ধ পূর্ণিমার তাৎপর্য শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক দেশ বাংলাদেশ। আওয়ামী লীগ যে সংবিধান প্রণয়ন করেছিল বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর জিয়াউর রহমান সেই সংবিধানকে ধ্বংস করে ধর্মভিত্তিক রাষ্ট্রব্যবস্থা চালু করেছিল।’

সবাইকে নিজ ধর্ম পালনের আহ্বান জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সবাই যদি নিজ নিজ ধর্ম সঠিকভাবে পালন করে তাহলে দেশ থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূল হয়ে যাবে।’

যুদ্ধাপরাধীদের গাড়িতে পতাকা তুলে খালেদা জিয়া স্বাধীনতাকে অপমান করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতাবিরোধীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে ৬৯ ও ৭১ এর চেতনা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।’

‘বুদ্ধ পূর্ণিমার তাৎপর্য’ শীর্ষক আলোচনা সভার উদ্বোধক ছিলেন ঢাকা-৯ আসনের সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী। সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সভাপতি শুদ্ধানন্দ মহাথের।

বৌদ্ধ পূর্ণিমা অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে ভোর সাড়ে ছয়টায় শুরু হয় প্রভাত ফেরি। এছাড়া সকাল সাতটায় জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল সাড়ে আটটায় শান্তি শোভাযাত্রা, সকাল নয়টায় বুদ্ধ পূর্ণিমার তাৎপর্য শীর্ষক আলোচনা, পবিত্র ত্রিপিটক পাঠ, স্বাগত বক্তব্য ও আলোচনা, বেলা ১১টায় বুদ্ধ পুজা ও শীলগ্রহণ, সংঘদান এবং বাংলাদেশ ও বিশ্বেরর শান্তি কমনায় সমবেত উপাসনা পূজনীয় ভিক্ষুসংঘকে পিন্ডদান। পরে বেলা সাড়ে ১১টায় অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।