মেইন ম্যেনু

গ্যাসের দর বাড়লে পোশাক খাতে ভয়াবহ বিপর্যয়ের শঙ্কা

সরকার নতুন করে শিল্পে ব্যবহার হওয়া গ্যাসের যে মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব দিয়েছে, তা বাস্তবায়ন হলে গ্যাসনির্ভর দেশের বস্ত্র ও পোশাক কারখানাগুলো লোকসানের মুখে পড়বে। ফলে একে একে বন্ধ হয়ে যেতে পারে এসব শিল্প, যা এ খাতের জন্য ভয়াবহ বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে। এর ফলে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সংকোচিত হওয়ার পাশাপাশি ও ব্যাংক খাত ও কর্মসংস্থানে আঘাত আসতে পারে।

বুধবার রাজধানীর কাওরানবাজারে বিজিএমইএ ভবনে বস্ত্র ও পোশাক খাতের তিনটি সংগঠন বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ’র উদ্যোগে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে উদ্যোক্তারা এ আশঙ্কার কথা জানান।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান ও বিটিএমএ সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন।

বিজিএমইএ সভাপতি গ্যাস সংকট ও গুণগত মান সম্পন্ন গ্যাস না পাওয়া সত্ত্বেও দফায় দফায় গ্যাসের দর বাড়ানোর যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। তিনি বলেন, সারা বিশ্বে কোথাও এভাবে জ্বালানির দাম বাড়ানোর নজির নেই।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, তিতাস গ্যাস কোম্পানি ভর্তুকি নিয়ে চলছে, অথচ শেয়ারহোল্ডারদের মুনাফা দিচ্ছে ৩৫ শতাংশ। আর আমরা দুই শতাংশও ব্যবসা করতে পারি না। দ্রুত জ্বালানি নীতি করার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, শিল্পকে ধ্বংস করে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া ঠিক হবে না। শুধুমাত্র একটি খাতের কথা বিবেচনা না করে দেশের সামগ্রিক উত্পাদনশীল খাতের স্বার্থ বিবেচনায় সিদ্ধান্ত নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।



মন্তব্য চালু নেই