মেইন ম্যেনু

চলে গেলেন প্রথম সরকারের গার্ড অব অনার প্রদানকারী

মেহেরপুরের মুজিবনগর বাংলাদেশের প্রথম সরকারের গার্ড অব অনার প্রদানকারী আনছার সদস্য লিয়াকত আলী (৭৫) আর নেই। শনিবার রাত দশটার দিকে ভবেরপাড়া গ্রামে নিজ বাড়িতে তিনি শেষ নিঃস্বাস ত্যাগ করেন। ইন্না লিল্লাহি…রাজিউন।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, একমাত্র মেয়েসহ অসংখ্য ভক্ত রেখে গেছেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ছয় মাস বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন মৃত মফিজ উদ্দীনের ছেলে লিয়াকত আলী। তার মৃত্যুতে মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

রোববার বেলা ১১টায় স্থানীয় ঈদগাহ ময়দানে মরহুমের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় সবার কাছে দোয়া কামনা করেছেন পরিবারের সদস্যরা।

উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের মুজিবনগর তৎকালীন বৈদ্যনাথতলা আম্রকাননে বাংলাদেশের প্রথম সরকার শপথ গ্রহণ করে। প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদসহ মন্ত্রী পরিষদ সদস্যদেরকে শপথের পর গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

১২ জন আনছার সদস্য সরকার প্রধানদের গার্ড অব অনার প্রদান করেন। এই সরকারের নেতৃত্বে দেশ স্বাধীন হলে ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই হয় ১২ আনছার সদস্যদের নাম। এদের মধ্যে ৮ জন আগেই মারা গেছেন। জীবিত রয়েছেন হামিদুল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম ও আজিম উদ্দীন।

দেশ স্বাধীনের প্রেক্ষাপটে ১২ আনছার সদস্যদের অবদানের গুরুত্ব বিবেচনায় মেলে রাষ্ট্রীয় স্কীকৃতি। ১৯৯৫ সালে তারা পেয়েছিলেন স্বাধীনতা পদক এবং পরবর্তীতে পেয়েছেন আনছার সেবা পদক।



মন্তব্য চালু নেই