মেইন ম্যেনু

ছাত্রীর সন্তানকে নিজের পিঠে নিয়ে ৩ ঘণ্টা ক্লাস করালেন অধ্যাপিকা

ছাত্রী ক্লাসে শিশুসন্তান নিয়ে এসেছেন। সন্তান কোলে নিয়ে নোট নেয়া কঠিন। তাই ছাত্রীর সন্তানকে নিজ কাঁধে বেঁধে টানা তিন ঘণ্টা ক্লাস করালেন অ্যানাটমির এক অধ্যাপিকা। খবর ইয়াহু নিউজের।

ঘটনাটি ঘটেছে রেন্সভিলের জর্জিয়ার গুইনেট কলেজে। কলেজের অ্যানাটমি, ফিজিওলজি ও জীববিজ্ঞানের সহকারী অধ্যাপক ড. রামাতা সিসোকো সিস এই নজির গড়েছেন।

ড. সিস জানান, তার এক ছাত্রী শিশুসন্তানকে দেখাশোনার জন্য কোনো আয়া পাননি। তাই সন্তানকে সঙ্গে নিয়েই ক্লাস করতে এসেছিলেন। ওই ছাত্রী তাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন ক্লাসে সন্তানকে নিয়ে বসা যাবে কিনা। ইতিমধ্যে ওই ছাত্রী সন্তানের কারণে বেশ কিছু ক্লাস মিস করেছে এবং পিছিয়ে গেছে। সামনে পরীক্ষা।

ড. সিস বলেন, এমতাবস্থায় আমি ছাত্রীকে তার সন্তান নিয়ে ক্লাসে আসতে বলি। মা যখন সন্তান কোলে নিয়ে ক্লাস করতে লাগলেন, তখন দেখলাম এটি কতটা সমস্যার। ক্লাসে মন দেয়া ও নোট নেয়ায় ছাত্রীর সমস্যা হচ্ছিল।

মালিতে জন্ম নেয়া এই অধ্যাপক তখন শিশুটিতে চাদরের মধ্যে ভরে নিজ কাঁধে ঝুলিয়ে ফেলেন। এভাবে টানা তিন ঘণ্টা ধরে শিশুটিকে নিজের কাছেই যত্নে রাখেন যাতে তার মা মন দিয়ে নোট নিতে পারেন।

ড. সিসের মেয়ে অ্যানা ক্লাস নেয়ার সময় তার মায়ের একটি ছবি শেয়ার করেছেন টুইটারে। শুক্রবার পোস্ট করা ওই ছবিটি মাইক্রোব্লগিং ওয়েবসাইট টুইটারে ভাইরাল হয়ে গেছে।

টুইটার অ্যানা লিখেছেন-

Annadote

@AnnaKhadejah

my mom is my role model.
her student couldn’t find a babysitter today & being the true African mother that she is, taught a THREE hour class with the baby on her back & fed him.

I’m so blessed to be raised by a woman who loves the world as much as her own children.

ছবিটি অনলাইনে শেয়ার হওয়ার পর হাজারো মানুষ ‘লাইক’ করেছেন। ছবির নিচে ড. সিসের প্রশংসা করেছেন সবাই। গত মার্চে মোরহাউস কলেজের একজন গণিতের অধ্যাপক একইভাবে ক্লাসে লেকচার দেয়ার সময় এক শিক্ষার্থীর বাচ্চাকে সামলে রেখে সবার মন জয় করেছিলেন।



মন্তব্য চালু নেই