জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রোজারের বাসার ছাদ থেকে পড়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু

রাজধানীর ধানমন্ডিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) বর্তমান ট্রোজারের বাসার ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে তাজরিয়ান মোস্তফা মৌমিতা (২০) নামের এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে।
এই ঘটনায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) ট্রেজারার অধ্যাপক ড.কামালউদ্দীন আহমদের ছেলে ফাইজারের বন্ধু আদনান কে আটক করেছে পুলিশ।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন নিউ মার্কেট জোনের এ ডিসি ইহসানুল ফেরদৌস।

তিনি জানান যে, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এক জন কে আটক করা হয়েছে। ওই ছাত্রীর ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর আসল কারন জানা যাবে।

তরুনীর স্বজনদের দাবি যে, মালয়েশিয়ার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া ছাত্রী করোনার সময় দেশে আসেন। একই ভবনের চতুর্থ তলায় ভাড়া থাকেন মৌমিতার পরিবার। নিহত তরুনী কে একই ভবনের ৫ম তলায় থাকা বাড়ির মালিকের ছেলে ফাইজার ও তার বন্ধু আদনান উক্ত্যক্ত করতো। এ ব্যাপারে ছেলেটির পরিবার কে জানানো হলে তারা কোনো কর্ণপাত করেনি। বরং নিহত শিক্ষার্থীদের মাকে হুমকি করে। এ ঘটনার জন্য উক্ত্যক্তকারী ফাইজার ও আদনান কে সন্দেহ করেছেন তারা।

এ বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড.কামালউদ্দীন আহমেদ বলেন যে, এই ঘটনার সাথে আমার ছেলে জড়িত না। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। উল্লেখ্য যে, শুক্রবার রাতে রাজধানীর ধানমন্ডিতে মালয়েশিয়ান একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া তরুনী তাজরিয়ান মোস্তফা মৌমিতা কে বাসার ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে হত্যার অভিযোগ ওঠে।



মন্তব্য চালু নেই