শিরোনাম:

জামায়াতকে বাদ দিল বিএনপি

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বছরব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। সোমবার (০১ মার্চ) কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়েছে।

সোমবার (০১মার্চ) বিকেলে রাজধানীর গুলশানের একটি অভিজাত হোটেলে আয়োজিত স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তীর বছরব্যাপী অনুষ্ঠানের ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

অন্যদিকে রাত ৮টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বইমেলা ও আলোকচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠান উপলক্ষে আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়েছে বিএনপি। এজন্য বিভিন্ন রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে দলটি। বিশেষ করে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের প্রায় সব দলকে আমন্ত্রণ করা হয়।

দলীয় কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমন্ত্রণ করে বিএনপি। শনিবার আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির কার্যালয়ে আমন্ত্রণপত্র দিয়ে আসেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বিজন কান্তি সরকার এবং সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন প্রচার কমিটির সদস্য সচিব ও দলের প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী।

তবে ঘটা করে এমন আয়োজন করলে অন্যতম শরিক দল জামায়াতকে আমন্ত্রণ করেনি বিএনপি। অনুষ্ঠানে ২০ দলীয় জোটের শরিকরা অংশ নিলেও জামায়াতের কোনো নেতাকে দেখা যায়নি।

এ বিষয়ে বিএনপি চেয়ারপারনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আজকের বিএনপির সুবর্ণজয়ন্তীর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে জামায়াতের কোনো নেতা অংশ নেননি।

বিএনপির স্বাধীনতা সুবর্ণজয়ন্তীর উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ও দলটির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা জামায়াতকে অনুষ্ঠানের দাওয়াত দেইনি। তাই তারা আসেনি।’

তবে জামায়াত দাওয়াত পেয়েছে কিনা সে বিষয়ে গণমাধ্যমের পক্ষ থেকে জানতে চাইলে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি দলটির সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার।



মন্তব্য চালু নেই