শিরোনাম:

৫ম বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড ২০২২ এর উদ্বোধন

জ্ঞানভিত্তিক ভবিষ্যতে রোবট মূল কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হবে : জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক বলেছেন, জ্ঞানভিত্তিক ভবিষ্যতে রোবট মূল কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হবে। ঝুঁকিপূর্ণ কাজের পাশাপাশি জ্ঞানভিত্তিক উদ্ভাবনী কাজের জন্য বাংলাদেশের শিশুরা রোবট তৈরি করবে। বিশ্বের উন্নত দেশের চেয়ে বাংলাদেশের শিশুরা মোটেও পিছিয়ে নেই।

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) প্রতিমন্ত্রী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি-তে তরুণদের অংশগ্রহণে ৫ম বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াড ২০২২ -এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ যেন রোবট বানাতে এবং রপ্তানিতে বিশ্বে নেতৃত্ব দিতে পারে, সে জন্য খুদে রোবটিয়ারদের প্রস্তুত হওয়ার আহ্বান জানান। একইসাথে বুয়েটের রোবটিকস ল্যাব যেনো তারা ব্যবহার করতে পারে সে বিষয়েও উদ্যোগ নেয়া হবে। তিনি আরো বলেন, আমাদের দেশের তরুণরা ইউরোপের থেকে পিছিয়ে নেই এবং তারা মেধাবী। তাদের শুধু সুযোগ তৈরি করে দেওয়া দরকার। আর এই সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা ও আধুনিক বাংলাদেশের স্থপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পলক বলেন, ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত আইসিটি বিষয় যুক্ত করা হয়েছে। ছাত্র-ছাত্রীরা যাতে হাতেকলমে শিখতে পারে সেজন্য স্কুল-কলেজে ১৩ হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা হয়েছে। নতুন করে ৫ হাজার কম্পিউটার ল্যাব এর পাশাপাশি তিনশত শেখ রাসেল স্কুল অব ফিউচার উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি আরো বলেন, এখন ক্লাস সিক্সের একটা ছেলে-মেয়ে কম্পিউটার ল্যাবে যেতে পারছে, প্রোগ্রামিং, কোডিং শিখতে পারছে, কম্পিউটার বিজ্ঞান সম্পর্কে তারা হাতে-কলমে জ্ঞান অর্জন করতে পারছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. হাফিজ মুহম্মদ হাসান বাবু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স এন্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চেয়ারপার্সন ড. সেঁজুতি রহমান, বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান, বাংলাদেশ রোবট অলিম্পিয়াডের সভাপতি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স এন্ড মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. লাফিফা জামাল অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ মোস্তফা কামাল।