ঝাড়ফুঁকের নামে ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে কবিরাজ কারাগারে

বরিশালের মুলাদী উপজেলার চর বাটামারা গ্রামে ঝাঁড়ফুঁক করার ছলে তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে হুমায়ুন কবির সরদার নামে এক ভন্ড কবিরাজকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে আসামি হুমায়ুনকে কারাগারে প্রেরণ করে পুলিশ।

হুমায়ুন সফিপুর ইউনিয়নের ব্রজমোহন গ্রামের মৃত জয়নাল সরদারের ছেলে।
একই সাথে চর বাটামারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনীর নির্যাতিত ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপতালে প্রেরণ করে পুলিশ।

এর আগে গত সোমবার (২১ ডিসেম্বর) বিকেলে নির্যাতিতার বাবা বাদী হয়ে একমাত্র হুমায়ুনকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি ধর্ষনের মামলা দায়ের করেন।

মামলায় বাদী অভিযোগ করেন, শিশুটির শারীরিক সমস্যা থাকায় স্থানীয়ভাবে ঝাড়ফুঁক করার জন্য গত সোমবার দুপুরে হুমায়ুনকে ডেকে আনা হয়। ঘরের একটি কক্ষে মেয়েকে ঝাড়ফুঁক করছিল হুমায়ুন। এসময় শিশুটির বাবা-মাকে সেখান থেকে সরিয়ে দেয়া হয়।

পরে বদ্ধ কক্ষে ঝাড়ফুঁকের নামে শিশুটিকে ধর্ষণ করে সে। বিষয়টি টের পেলে এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশে দেয়।

মুলাদী থানার ওসি ফয়েজ উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় নির্যাতিতার বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আসামিকে আদালতে সোপর্দ করা হয়।

আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেয়। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শিশুটিকে নির্যাতিতাকে মেডিকেলে পাঠানো হয়।



মন্তব্য চালু নেই