মেইন ম্যেনু

টানা বৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

মোঃ হাবিব ওসমান, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহে কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে হাজার হাজার কৃষকের খেতের ফসল নষ্ট হতে চলেছে। বৃষ্টিতে ধান, আখসহ অন্যান্য ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

ঝিনাইদহের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ধান, আখ, মুলা, মরিচ, কফি, বেগুন জাতীয় বিভিন্ন ফসলের খেতে পানি জমে আছে। এতে খেতের গাছ মরে যেতে শুরু করেছে। কোনো কোনো কৃষক সেচযন্ত্র দিয়ে খেত থেকে পানি সরানোর চেষ্টা করছেন।

জেলার অনেক কৃষকেরা জানান, গত বুধবার মধ্যরাত থেকে রবিবার সকাল পর্যন্ত টাকা বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় তাঁরা ফসল নিয়ে শঙ্কায় আছেন।
বৃষ্টির কারণে অনেক খেতে পানি জমে আছে। চাষিরা বৃষ্টির পানি সরানোর জন্য খেতের মাঝখানে ছোট ছোট নালা তৈরি করে দিচ্ছেন।
শৈলকুপা উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের বড় মৌকুড়ী গ্রামের কৃষক পলাশ বিশ্বাস জনান, জমির আইল কেটে বা সেচযন্ত্র দিয়ে পানি সরিয়েও লাভ হয়নি। তাঁর প্রায় ৫ বিঘা জমির ধান ও আখ অতিবৃষ্টিতে নষ্ট হয়ে গেছে। ৪ বিঘা জমিতে ধানের চাষ করেছিলেন।
বৃষ্টিতে প্রায় অর্ধেক নষ্ট হয়ে গেছে। বাকিগুলোর অবস্থাও ভালো না।

এদিকে সবজি চাষিরা আরো বেশী বিপাকে পড়েছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে সবজি খেত পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা তাঁদের।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঝিনাইদহের ৬টি উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে মাঠের মরিচ, বেগুন, আলু ও মুলাসহ বিভিন্ন সবজির চাষ করা হয়েছে। কিছু সবজি বিক্রিও করেছেন চাষিরা।

কৃষক আমিরুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান, ১ বিঘা জমিতে মরিচ চাষ করেছেন। মরিচ পাকতেও শুরু করেছে। বর্তমানে মরিচের বাজার চড়া। কিন্তু টানা বৃষ্টিপাতের ফলে খেতের অধিকাংশ গাছ মরে গেছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে সব শেষ হয়ে যাবে।
ঝিনাইদহ কৃষি স¤প্রসারন অধিদপ্তরের (ভারপ্রাপ্ত) উপ-পরিচালক ড. খাঁন মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান জানান, আবহাওয়া উন্নতি হলে ক্ষতির পরিমাণ কমে আসবে।

এদিকে সবজি খেতে বৃষ্টির পানি জমায় ও গাছ মাটিতে লুটিয়ে পড়ায় চাহিদা অনুযায়ী বাজারে সবজির উৎপাদন কমেছে। ফলে সবজির দাম অনেকাংশেই বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে করে সাধারণ ক্রেতারাও পড়েছে বিপাকে।



মন্তব্য চালু নেই