শিরোনাম:

টেনে সরানো হলো আস্ত দোতলা বাড়ি

কৃষক সুখিন্দর সিং সুখীর দোতলা বাড়িটা বেশ নজরকাড়া। নির্মাণও করেছিলেন দেড় কোটি রুপি খরচ করে। সম্প্রতি বাড়িটি নিয়ে বিপদে পড়েন তিনি। জানতে পারেন, সরকারের একটি প্রকল্পের অধীনে তাঁর জমির ওপর দিয়ে নির্মাণ করা হবে মহাসড়ক, ভেঙে ফেলা হবে বাড়িটি। শখের বাড়ির এমন ভবিষ্যৎ পরিণতি মানতে পারেননি সুখী। শেষমেশ আস্ত বাড়িই টেনে দূরে সরিয়ে নিচ্ছেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, সুখীর বাড়ি ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের সাঙ্গরুর জেলার রোশানওয়ালা গ্রামে। গ্রামটির ওপর দিয়ে নির্মাণ করা হবে দিল্লি-অমৃতসর-কাতরা এক্সপ্রেসওয়ে। মহাসড়কটি হরিয়ানা, পাঞ্জাব, জম্মু ও কাশ্মীরের ভেতর দিয়ে যাবে। এসব এলাকায় চলাচলকারী মানুষের দুর্দশা কমাতে ও যাত্রার সময় বাঁচাতে প্রকল্পটি হাতে নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

শখের বাড়িটি ৫০০ ফুট দূরে সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে সুখীর। এরই মধ্যে সেটি ২৫০ ফুট সরিয়ে নিয়েছেন। এ কাজে তাঁকে সহায়তা করছেন গ্রামের নির্মাণশ্রমিকেরা। এদিকে বাড়িটি সরানোর একটি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে দেখা যায়, চাকার মতো দেখতে কিছু যন্ত্রাংশের সাহায্যে ফসলি জমির ওপর দিয়ে বাড়িটি টেনে নেওয়া হচ্ছে।

বাড়িটির নির্মাণকাজে ২০১৭ সালে হাত লাগিয়েছিলেন সুখী। শেষ হয় ২০১৯ সালে। সুখী বলেন, ‘বাড়িটি নির্মাণ করতে আমার দুই বছর লেগেছে। খরচ হয়েছে প্রায় দেড় কোটি রুপি। এই বাড়ি নির্মাণ করা আমার স্বপ্ন ছিল। তাই আমি সেটি ভেঙে নতুন বাড়ি নির্মাণ করতে চাইনি।’

এদিকে গত মাসে এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পটি নিয়ে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মান বলেন, দিল্লি-অমৃতসর-কাতরা জাতীয় মহাসড়ক সরকারের একটি বড় প্রকল্প। এর নির্মাণকাজ শেষ হলে দিল্লি থেকে পাঞ্জাব হয়ে জম্মু ও কাশ্মীরে চলাচলকারী মানুষের সময়, অর্থ ও শ্রমের সাশ্রয় হবে।