মেইন ম্যেনু

ট্রলার থেকে তুলে নিয়ে দুই মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ

মাদারীপুরে ট্রলার থেকে তুলে নিয়ে দুই মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে দুই বখাটের বিরুদ্ধে। গুরুতর অবস্থায় তাদের জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রাথমিক পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। অভিযুক্ত মাসুদ ও রুবেলকে আটক করেছে পুলিশ।

স্বজনরা জানান, সোমবার সকালে মাদারীপুর শহরে নানার বাড়িতে বেড়াতে আসে দুই শিক্ষার্থী। পথে বখাটে মাসুদ মোড়ল ও রুবেল মোল্লা ট্রলার থামিয়ে একটি পরিত্যক্ত গরুর খামারে নিয়ে যায় তাদের। সেখানে তাদের উপর পাশবিক নির্যাতন চালানো হয়। ভোরে এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে।

ভুক্তভোগী এক ছাত্রী বলেন, ছেলে দুইটা এসে আমাকে গরুর খামারে, আর একজনকে ট্রলারে নিয়ে বলে তোমাদের কাছে যা চাইবো, তা দিবা। না দিলে মেরে নদীতে ফেলে দিবো।

ভুক্তভোগী আরেক ছাত্রী বলেন, আমাদের নিয়ে প্রথমে মুখ বেধে ধর্ষণ করে। তারপর এলাকার আলম ভাই নামে একজন এসে আমাদের নিয়ে আসছে।

ভুক্তভোগীদের স্বজনরা দাবি, এই রকম যেনো কোন মেয়ের সাথে আর না ঘটে। আমরা অপরাধীদের ফাঁসি চাই।

এদিকে প্রাথমিকভাবে ওই দুই মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

মাদারীপুর সদর হাসপাতাল কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার বলেন, প্রাথমিক অবস্থাতে এখানে ভর্তি দুই রোগী অস্বাভাবিক কথা বলছেন।

ঘটনার পর অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত বখাটে রুবেল ও মাসুদকে আটক করেছে পুলিশ।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার এসআই মো. রহমত আলী বলেন, ছেলে দুইটা তাদের পরিচিত এবং ছেলেরা তাদের ধর্ষণ করেছে।

অভিযুক্ত রুবেলের বিরুদ্ধে এর আগেও নারী নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে।



মন্তব্য চালু নেই