মেইন ম্যেনু

চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ও আহতের ঘটনায় আদালতে অভিযোগ দায়ের

ট্রাকের চালক ও হেলপাারের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

শামীম রেজা, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধি: দামুড়হুদা জয়রামপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৩ জন নিহত ও ১৩ জন আহতের ঘটনায় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। গতকাল রোববার দুর্ঘটনা কবলিত ট্রাকের চালক ও সহকারীকে অভিযুক্ত করে এ অভিযোগ দাখির করেছে পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ।

বিচারিক হাকিম মো. মুস্তাফিজুর রহমান অভিযোগপত্রটি গ্রহণ করে ট্রাকের চালক রাজিব (২৭) ও হেলপার জুয়েল রানার (২৮) বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

রাজীবের বাড়ি সদর উপজেলার দৌলাতদিয়াড় বাদালপাড়ায়। জুয়েল রানার বাড়ি একই গ্রামের দক্ষিণপাড়ায়।

এ মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়েছে ২০১৮ সালের ১৫ জানুয়ারি। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আমজাদ হোসেন ২৭৯/৩৩৮-ক/৩০৪/৩০৪(ক)/৩০৪(খ)/৪২৭ ধারায় অভিযোগপত্রটি দাখিল করেন। এ অভিযোগ দাখিল করেছে গতকাল রোববার দুপুরে আদালতের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. রাশেদ দামুড়হুদা আমলী আদালতে অভিযোগপত্রটি দাখিল করেন।

গত ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসের সকাল সকাল সাড়ে ৬টার দিকে দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। দ্রæতগামী ট্রাকের (চুয়াডাঙ্গা- ট- ১১-০৫৮৮) সঙ্গে শ্যালো ইঞ্জিনচালিত আলমসাধুর মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে আলমসাধুর আরোহী ১৩ জন নির্মাণ শ্রমিক নিহত এবং ১৩ জন গুরুতর আহত হন। হতাহতদের সবার বাড়ি দামুড়হুদা উপজেলার বড়বলদিয়া, বলদিয়া ও সুলতানপুর গ্রামে। তাঁরা সবাই গ্রামের বাড়ি থেকে একটি আলমসাধুতে চড়ে আলমডাঙ্গার মুন্সিগঞ্জে সড়ক নির্মাণকাজে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন।

নিহত ব্যক্তিরা হলেন ইজ্জত আলী, আব্দার রহমান, বিল্লাল হোসেন, আকুবার আলী, নাজির হোসেন, শান্ত হক, হাফিজুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, বিল্লাল হোসেন, লাল চাদ আলী, জজ মিয়া ও শাহিন আলী। আহত ব্যক্তিরা হলেন তরিকুল ইসলাম, আতিকুল ইসলাম, জিয়াউর রহমান, মজিবর রহমান, সুরাবুদ্দীন, আলতাফ হোসেন, নুর ইসলাম, গাজীউর রহমান, শফিকুল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম, সুমন আলী, লাল চাদ ও আলী হোসেন।

আলোচিত এই সড়ক দুর্ঘটনায় দামুড়হুদা মডেল থানার এসআই মেজবাউর রহমান বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। একই থানার এসআই আমজাদ হোসেন মামলাটির তদন্ত করেন। তিনি এই মামলার তদন্ত শেষে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। যা দামুড়হুদা আমলি আদালতের দায়িত্বপ্রাপ্ত এএসআই মো. রাশেদ রোববার আদালতে অভিযোগপত্রটি দাখিল করেন।



মন্তব্য চালু নেই