মেইন ম্যেনু

দুদক-পুলিশ-বিচারক সবই এখন হাসিনা : গয়েশ্বর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাই দেশ চালাচ্ছেন এমন অভিযোগ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ‘দেশে দুদক (দুর্নীতি দমন কমিশন) চেয়ারম্যান, জেলার, পুলিশ, বিচারক সবকিছুই এখন শেখ হাসিনা।’

শনিবার বিকালে চট্টগ্রামে বিএনপি আয়োজিত বিভাগীয় সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। নগরীর কাজীর দেউড়ি নূর আহমদ সড়কে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে চট্টগ্রামে সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে বৃহস্পতিবার বরিশালে সমাবেশ করে বিএনপি। অন্যান্য বিভাগীয় শহরেও কর্মসূচি পালন করবে দলটি।

২৭টি শর্তে চট্টগ্রামে সমাবেশের অনুমতি পায় বিএনপি। দুপুর সাড়ে ৩টায় বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে নগরের কাজীর দেউড়ি নূর আহমদ সড়কে নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে সমাবেশ শুরু হয়।

সড়কে নেতাকর্মীরা অবস্থান নেয়ায় নগরীর কাজীর দেউড়ি থেকে লাভলেইন পর্যন্ত নূর আহমদ সড়কের পূর্বপাশে সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া সকাল থেকে এলাকার সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়।

গয়েশ্বর বলেন, ‘সরকার মশা মারতে পারে না, কিন্তু মানুষ মারতে পারে। এমন সরকারের কাছে খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে কী হবে? খালেদাকে আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে মুক্তি দেয়া হবে না, এটা প্রমাণিত। আমরা আর খালেদা জিয়ার মুক্তি চাইব না। যারা তার মুক্তির পথে বাধা দেবে, তাদের ক্ষমতা থেকে টেনে নামানো হবে।’

‘শেখ হাসিনাকে চুরির মামলায় গ্রেপ্তর করা হবে। তাই তার কাছে খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে লাভ নেই।’

বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন বলেন, ‘বিএনপিকে নিঃশেষ করা যাবে না। বিএনপি গণমানুষের দল। বিএনপি ধর্ণা দেয়ার দল নয়। বেগম জিয়ার মুক্তির আন্দোলন চট্টগ্রাম থেকেই হবে। তার মুক্তিতে সামনে কঠোর কর্মসূচি আসবে। তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।’

সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মওদুদ আহমদ, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, দলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, মোহাম্মদ শাহজাহান, মহাসমাবেশের প্রধান সমন্বয়ক ও বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীমসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা বক্তব্য দেন।



মন্তব্য চালু নেই