মেইন ম্যেনু

দুবাইয়ে গ্রেফতার জিসান, বাংলাদেশে আনার উদ্যোগ

বাংলাদেশের তালিকাভুক্ত পলাতক শীর্ষ সন্ত্রাসী জিসান আহমেদকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (ন্যাশনাল সেন্ট্রাল ব্যুরো) মহিবুল ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘ইন্টারপোলের মাধ্যমে দুবাই কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বাংলাদেশ যোগাযোগ করছে। তারা জিসানকে গ্রেফতার করার কথা জানিয়েছে।’

এদিকে গ্রেফতারের পর দ্রুত তাকে দুবাই থেকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। গ্রেফতার করার পর ইন্টারপোলের মাধ্যম দুবাই পুলিশ বাংলাদেশের পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে।

পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (ন্যাশনাল সেন্ট্রাল ব্যুরো) মহিউল ইসলাম বলেন, ‘জিসান সম্পর্কে বিস্তারিত জানার জন্য আমাদের কাছে কিছু তথ্য চেয়েছিল। ডিবি পুলিশের সহায়তায় আমরা সেগুলো পাঠানোর পর তারা জিসান আহমেদের পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে জানিয়েছে। ইন্টারপোলের নোটিশটি আরো জোরালো করার জন্য আমাদের অনুরোধ করে।’

জিসানের নাম ইন্টারপোলের রেড অ্যালার্টের তালিকায় ছিল। তবে বাংলাদেশের পাসপোর্ট নয়, আলী আকবর চৌধুরী নামে একটি ভারতীয় পাসপোর্ট বহন করছিলেন জিসান।

গ্রেফতারের পর এখন তাকে দুবাই থেকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে হত্যা, বিস্ফোরক সরঞ্জাম রাখার অভিযোগ রয়েছে বলে ইন্টারপোলের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘোষিত ‘শীর্ষ ২৩ সন্ত্রাসী’র তালিকায় নাম ছিল জিসান আহমেদের। তাকে ধরিয়ে দেয়ার জন্য পুরস্কারও ঘোষণা করা হয়েছিল।

২০০৩ সালে মালিবাগের একটি হোটেল দুইজন ডিবি পুলিশ সদস্যকে হত্যার ঘটনায় জিসান আহমেদের নাম আসে। এরপরে সে দেশ ত্যাগ করে ভারতে পালিয়ে যায়।

অপারেশন ক্লিনহার্ট চলাকালে ঢাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী পিচ্চি হান্নান নিহত হলে জিসান ভারতে পালিয়ে যান। সেখান থেকে পরবর্তী সময়ে দুবাইয়ে পাড়ি জমান।



মন্তব্য চালু নেই