মেইন ম্যেনু

দুর্গাপুরে ৪ শিক্ষক দিয়ে চলছে সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়

তোবারক হোসেন খোকন, দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি : নেত্রকোনার দুর্গাপুরে শত বছরের পুরোনো ঐতিহ্যবাহী মহারাজা কুমুদচন্দ্র মেমোরিয়াল পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের অবস্থা নাজুক, স্কুল চলছে মাত্র ৪জন শিক্ষক দিয়ে।

সরেজমিনে গিয়ে জানাগেছে, তৎকালীন সুসঙ্গ পরগনার মহারাজা ভুপেন্দ্র চন্দ্র সিংহ শর্ম্মা ১৯১৮সনে অত্র এলাকায় শিক্ষার মান বিস্তারের লক্ষে তাঁর বাবা মহারাজা কুমুদ চন্দ্র সিংহ শর্ম্মার নামে প্রতিষ্ঠা করেন অত্র বিদ্যালয়। পরবর্তিতে বহু চরাই উৎরাই পার করে এরশাদ সরকার দুর্গাপুর উপজেলা সদরে ২াট মাধ্যমিক স্কুল জাতীয় করন করেন, তাঁর মধ্যে এ স্কুলটিও রয়েছে। অত্র বিদ্যালয়ে সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ২২জন শিক্ষক থাকার কথা থাকলেও মাত্র ৪জন শিক্ষক দিয়ে চলছে পাঠদান। দাপ্তরিক কোনো জরুরি কাজ অথবা অসুস্থতার কারণে একজন অনুপস্থিত থাকলে তিন শিক্ষক দিয়েই চলে বিদ্যালয়ের সব শ্রেণির পাঠদান। এতে শিক্ষা কার্যক্রমসহ দাপ্তরিক অন্যান্য সকল কাজ ব্যাহত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এছাড়া উপজেলায় কোন সভায় থাকলে তো কথাই নেই।

এ বিষয় নিয়ে প্রধান শিক্ষক আব্দুল গফুর এ প্রতিনিধিকে বলেন, নিয়ম ভেঙ্গে গত দুই মাসে এ বিদ্যালয় থেকে দুইজন শিক্ষক অন্যত্র বদলি হয়ে চলে গেছে। এখন শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে ধরে রাখা এবং মান সম্মত পাঠদান হচ্ছেনা বিধায়, জরুরি ভিত্তিতে চাহিদা মোতাবেক শিক্ষক প্রয়োজন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আরিফা আখতার বলেন, আমি এই ষ্টেশনে নতুন এসেছি, বিষয়টি আমি শুনেছি, জরুরী ভিত্তিতে এর ব্যাবস্থা নেয়ার জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলবো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মামুনুর রশীদ বলেন, শিক্ষক না থাকায় বিদ্যালয়ের পড়াশুনার অবস্থা খুবই নাজুক। এ ব্যাপারে মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সাথে কথা বলে দ্রæত ব্যবস্থা নেবো। এ বিষয়ে অবিভাবকগন মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।



মন্তব্য চালু নেই