শিরোনাম:

দুর্দিনে সারা, কেন পাশে নেই বাবা সাইফ আলি খান?

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুকে ঘিরে একের পর এক বেরিয়ে আসতে থাকে চাঞ্চলক্যর তথ্য। বেরিয়ে আসে বলিউড অভিনেতা-অভিনেত্রীদের মাদক সংশ্লিষ্টতার নানা তথ্য।

এরই ধারাবাহিকতায় ভারতের নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) জেরার মুখে পড়েন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন, শ্রদ্ধা কাপুর ও সারা আলি খান।

মাদক সম্পৃক্ততার অভিযোগে বেশ নাকানি চুবানি খাচ্ছেন উঠতি নায়িকা সারা।

কিন্তু মেয়ের এই দুর্দিনে কেন পাশে নেই তার বাবা প্রভাবশালী অভিনেতা সাইফ আলি খান? দূরত্ব বাড়ছে সাইফ-সারার? ঝামেলা এড়াতেই কি আচমকাই দিল্লি পাড়ি ছোট নবাবের? সূত্র বলছে তেমনটাই।

জানা গেছে, বাবা সাইফ আলি খান নাকি ‘অযাচিত ঝামেলায়’ এই মুহূর্তে নিজেকে জড়াতে একেবারেই নারাজ।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, দিন কয়েক আগেই সপরিবারে দিল্লি পাড়ি দিয়েছেন সাইফ আলি খান। স্ত্রী কারিনার ‘লাল সিংহ চাড্ডা’ ছবির শুটিং হবে দিল্লিতেই। সাইফও নাকি এসব ঝামেলা থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখতে আপাতত দিল্লিকেই ‘নিরাপদ’ বলে মনে করছেন।
শোনা যাচ্ছে, কারিনার শুটিং শেষ না হওয়া পর্যন্ত আপাতত দিল্লিতেই তাদের ‘পতৌদি প্যালেসে’ থাকবে খান পরিবার।

অন্য কয়েকটি সূত্রের দাবি, সারার এই মাদককাণ্ডে জড়িয়ে যাওয়ার ঘটনায় সাইফ পরোক্ষভাবে আঙুল তুলেছেন প্রাক্তন স্ত্রী, সারার মা অমৃতার দিকে। সাইফের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর অমৃতাই সারা এবং ইব্রাহিমকে (অমৃতা-সাইফের ছেলে) বড় করেছেন।

অমৃতা যথেষ্ট কড়া অভিভাবক বলেই পরিচিত ইন্ডাস্ট্রিতে।
তা সত্ত্বেও সারা-সুশান্তের ব্যাংকক ট্রিপ, ফার্মহাউসে পার্টি, মাদক কাণ্ডে নাম আসায় ঘনিষ্ঠমহলে সাইফ নাকি দুষেছেন প্রাক্তন স্ত্রীকেই।

অভিনেতার তড়িঘড়ি দিল্লি যাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করেও উঠছে নানা প্রশ্ন। বাবা-মেয়ের মধ্যে যখন দূরত্ব ক্রমশ বাড়ছে তখন দাদি শর্মিলা নাকি বিপদে পাশে দাঁড়িয়েছেন নাতনির।

সূত্র বলছে, সেন্সর বোর্ডের সাবেক চেয়ারপারসন শর্মিলা নাকি তার সমস্ত যোগাযোগ কাজে লাগিয়ে যত দ্রুত সারাকে এই ঝামেলা থেকে মুক্তির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

গত শনিবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সারাকে তাদের ব্যালাড এস্টেটের অফিসে ডেকে পাঠায় এনসিবি। সেখানে প্রায় ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় তাকে।

এনসিবি সূত্রে খবর, জেরায় সুশান্তের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন সারা। ব্যাংকক ট্রিপের কথাও মেনে নিয়েছেন। তবে মাদকের ব্যাপারে অভিনেত্রীর দাবি, তিনি সিগারেট খেলেও জীবনে কোনওদিন মাদক নেননি। ইতিমধ্যেই সারার ফোন বাজেয়াপ্ত করেছে এনসিবি। তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

সারা ছাড়াও ওই একই দিন এনসিবি ডেকেছিল দীপিকা পাড়ুকোন এবং শ্রদ্ধা কাপুরকে। তাদেরও ফোন নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে এনসিবি।

এনসিবি’র দাবি, মাদককাণ্ডে সারার নাম প্রথম আনেন মাদক মামলায় প্রধান অভিযুক্ত সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী।
তিনি জানান, ‘কেদারনাথ’ ছবির সময় থেকেই মাদক নেওয়ার অভ্যাস করেন সুশান্ত। রিয়া দাবি করেন, ওই ছবির সেটে প্রকাশ্যেই মাদক দেওয়া- নেওয়া চলতো।

প্রসঙ্গত ‘কেদারনাথ’ ছবিতে সুশান্তের বিপরীতে ছিলেন সারা। সেই কারণেই তাকে ডেকে পাঠায় এনসিবি। সারা সাইফ-অমৃতার প্রথম সন্তান। ১৯৯১ সালে অমৃতার সঙ্গে বিয়ে হয় সাইফের। ১৯৯৫ সালে জন্ম হয় সারার। ২০০৪ সালে বিচ্ছেদ হয়ে যায় সাইফ-অমৃতার।
পরে সাইফের সঙ্গে বিয়ে হয় কারিনার। তাদের প্রথম সন্তান তৈমুর। কারিনা বর্তমানে অন্তঃসত্ত্বা। আপাতত দ্বিতীয় সন্তানের অপেক্ষায় দিন গুনছেন তারা।



মন্তব্য চালু নেই