মেইন ম্যেনু

দেশের দীর্ঘতম রেলপথ চালু, আন্তঃনগর ট্রেন পেল পঞ্চগড়

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের সঙ্গে ঢাকার ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। শনিবার সকাল ৭টা ২০ মিনিটে দেশের দীর্ঘতম রেলপথের শুরুর স্টেশন পঞ্চগড় থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসে দ্রুতযান এক্সপ্রেস। এর ফলে পঞ্চগড়-ঠাকুরগাঁওবাসীর দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণ হলো।

সকালে রেলের পতাকা উড়িয়ে ঢাকা-পঞ্চগড় আন্তঃনগর ট্রেনের উদ্বোধন করেন রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবুল কালাম আজাদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পঞ্চগড়-২ আসনের সংসদ সদস্য নূরুল ইসলাম সুজন, রেলওয়ের মহাপরিচালক কাজী মো. রফিকুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক (ডিসি) সাবিনা ইয়াসমিন, জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) গিয়াসউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

পরে ট্রেনটি ঠাকুরগাঁও রোড রেলস্টেশনে আসলে ঠাকুরগাঁও-ঢাকা আন্তঃনগর ট্রেনের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন। দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে ঠাকুরগাঁওয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ঠাকুরগাঁও রেলস্টেশনের মাস্টার আখতারুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসক ড.কে এম কামরুজ্জামান সেলিম, পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান, জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুহা সাদেক কুরাইশী, প্রেসক্লাবের সভাপতি মনসুর আলী প্রমুখ। আলোচনা শেষে যাত্রীদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান অতিথিরা। এরপর ট্রেনটি ঠাকুরগাঁও থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয়।

এর আগে গত ২৩ অক্টোবর রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের মহা-ব্যবস্থাপকের কাছে একটি চিঠি পাঠানো হয়। রেলওয়ের ট্রাফিক ট্রান্সপোর্টেশন বিভাগের উপ-পরিচালক খালিদুন নেছা স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, ঢাকা-দিনাজপুরের মধ্যে চলাচলকারী দ্রুতযান এক্সপ্রেস এবং একতা এক্সপ্রেস ট্রেন একই ধরনের কোচ, কম্পোজিশনে লাল-সবুজ রংয়ে ইন্দোনেশিয়ান কোচ দিয়ে পরিচালনা করা হবে। বর্তমানে একতা এক্সপ্রেস ট্রেন সোমবার আর দ্রুতযান বুধবার বন্ধ থাকে। ট্রেনগুলো তিনটি রেক দিয়ে চালানো হবে। নতুন সময়সূচিতে ট্রেন দুটির সাপ্তাহিক কোনো বন্ধ থাকবে না।



মন্তব্য চালু নেই