মেইন ম্যেনু

দেশের হয়ে খেলার মানেটা ভালোভাবে বুঝেছি : সাকিব

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়ে তা লুকানোর দায়ে ভারত সফরের ঠিক আগ মুহূর্তে সাকিব আল হাসানের ওপর আইসিসি’র নিষেধাজ্ঞা মেনে নিতে পারছেন না সমর্থকরা। এই ইস্যুতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকেও সমালোচনা করতে ছাড়ছেন না তারা। অনেকের দাবি, বোর্ড এ বিষয়ে আগে থেকে জেনেও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়নি। ফেইসবুকে আবেগঘন এক স্ট্যাটাসে এসব অভিযোগ অবশ্য উড়িয়ে দিলেন সাকিব।

সেই সঙ্গে কঠিন সময়ে সমর্থক, শুভানুধ্যায়ীদের পাশাপাশি বোর্ডকে পাশে পাওয়ায় কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার।

শুক্রবার মাঝ রাতে নিজের ভেরিফাইড ফেইসবুকে সাকিব এক স্ট্যাটাসে লেখেন-“আমার সব ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের উদ্দেশে প্রথমেই বলতে চাই, আমার ও আমার পরিবারের এই কঠিন সময়ে আপনাদের নিঃস্বার্থ সহযোগিতা ও ভালোবাসা আমাকে ভীষণভাবে ছুঁয়ে গেছে এবং আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি। নিজ দেশের প্রতিনিধিত্ব করার মানেটা গত কয়দিনে আমি যেকোনো সময়ের চেয়ে ভালোভাবে বুঝতে পেরেছি।”

“সেই সঙ্গে আমার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপে আমার যেসব ভক্ত ক্ষুব্ধ হয়েছেন তাদের সবাইকে আমি শান্ত থাকার ও ধৈর্য ধরার অনুরোধ করছি।”

“আমি এটা পরিষ্কার করে বলতে চাই যে, আইসিসির দুর্নীতি দমন ইউনিটের পুরো তদন্ত প্রক্রিয়াটি ছিল খুব গোপনীয়। সাজা ঘোষণার মাত্র কয়েক দিন আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আমার কাছ থেকেই এটা জানতে পারে। তখন থেকেই বিসিবি আমাকে সর্বোচ্চ সহায়তা করেছে এবং তারা আমার পরিস্থিতি বুঝতে পেরেছে। এ জন্য আমি কৃতজ্ঞ।”

“আমি বুঝতে পারছি, কেন অনেক মানুষ আমাকে সহযোগিতার প্রস্তাব দিচ্ছে। এটাকে আমি সাধুবাদ জানাচ্ছি। কিন্তু সবকিছুর একটা নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া আছে। আমি আমার নিষেধাজ্ঞা মেনে নিয়েছি। কারণ আমার কাছে মনে হয়েছে এটাই সঠিক কাজ।”

“এখন আমার পুরো মনোযোগ ক্রিকেট মাঠে ফেরা এবং ২০২০ সালে আবারও বাংলাদেশের হয়ে খেলায়। ততদিন পর্যন্ত আমাকে আপনাদের দোয়া ও হৃদয়ে রাখবেন। আপনাদের ধন্যবাদ।”



মন্তব্য চালু নেই