মেইন ম্যেনু

ধান উৎপাদন কমিয়ে অন্য ফসল উৎপাদনের আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর

আমরা ধান উৎপাদনে সারপ্রাইজড মন্তব্য করে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, এখন ধান উৎপাদন কমিয়ে অন্য ফসল উৎপাদনের প্রতি নজর দিতে হবে। সিলেটে কমলা, মালটা, পেয়ারা, ভুট্টা ও তেল জাতীয় ফসল উৎপাদনের সম্ভবনা রয়েছে। এর প্রতি নজর দিতে হবে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, সিলেটের কমলার অনেক গুণগান ছিল। এখন কমলার চাষ কমে যাচ্ছে। তবে, মাল্টার চাষ ও উৎপাদন বেড়েছে। তাই ধানের পাশাপাশি এখন অন্যান্য ফসলের উৎপাদন বাড়ানো প্রয়োজন।

শনিবার রাতে সিলেট সার্কিট হাউজের কনফারেন্স হলে কৃষি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন দফতর ও সংস্থার কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী আরও বলেন, দেশে ভুট্টার মার্কেট বিরাট। পোলট্রি সেক্টরে এর চাহিদা অনেক বেশি। দেশে প্রতি বছর ৪৬ লাখ টন ভুট্টা উৎপাদন হয়। আরও ১৫ টন আমাদের আমদানি করতে হয়। তাই ভুট্টার উৎপাদন বাড়াতে হবে। সিলেটে তেল জাতীয় ফসল সরিষা ও বাদাম উৎপাদন বাড়ানো প্রয়োজন।

পাটের ব্যবহার এখন কমে গেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যে ফসলের চাহিদা বেশি সেদিকে নজর দিতে হবে। দেশে এখন কফি চাষ হচ্ছে। কফির রফতানিও ভালো, তাই সিলেটে কফি চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে।

মতবিনিময় সভায় সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মতিয়ার রহমান হাওলাদার, কৃষি অধিদফতরের অতিরিক্ত পরিচালক (সিলেট অঞ্চল) মো. শাহজাহান, সিলেট অঞ্চলের কৃষি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের কর্মকর্তাসহ সিলেট, সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার জেলা ও বিভিন্ন উপজেলার কৃষি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে, সন্ধ্যা ৭টায় মন্ত্রীর সিলেটে আসার কথা থাকলেও বিমানের ফ্লাইট বিলম্বে রাত ৯টায় তিনি এমএজি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান। এ সময় কানাডা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং শুভ প্রতিদিনের সম্পাদক ও প্রকাশক সরওয়ার হোসেনসহ দলীয় নেতাকর্মীরা মন্ত্রীকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান।



মন্তব্য চালু নেই