মেইন ম্যেনু

নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশে বাধা নেই : আপিল বিভাগ

সংবাদপত্রের সাংবাদিক ও কর্মচারীদের বেতন কাঠামো নির্ধারণে গঠিত নবম ওয়েজ বোর্ডের চূড়ান্ত গেজেট (প্রজ্ঞাপন) প্রকাশের ওপর হাইকোর্টের দেয়া স্থিতাবস্থার (স্ট্যাটাস কো) আদেশ আট সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

ফলে নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশে আর কোনো বাধা থাকলো না বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

হাইকোর্টের স্থিতিবস্থা জারির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন নিষ্পত্তি করে মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ এ আদেশ দেন। বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, বিচারপতি জিনাত আরা ও বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান।

শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষের ছিলেন, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিত দেবনাথ ও অমিত তালুকদার। নিউজ পেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) রিটের পক্ষে ছিলেন সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফ। তার সঙ্গে ছিলেন অপর জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম ও অ্যাডভোকেট মো. ইউসুফ আলী।

গত ১৪ আগস্ট আপিল বিভাগের অবকাশকালীন চেম্বার কোর্ট বিচারপতি মো. নূরুজ্জামানের আদালত আবেদনটি পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য ১৯ আগস্ট দিন ধার্য করে আদেশ দিয়েছিল। সে অনুযায়ী (১৯ ও ২০ আগস্ট) বিষয়টির ওপর শুনানি হয়।

আপিল বিভাগের আদেশের পর ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একরামুল হক টুটুল  জানান, হাইকোর্টের আদেশ আট সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছে আপিল বিভাগ এবং নিয়মিত আপিল (সিপি ফাইল) আবেদন করতে বলা হয়েছে। এখন নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশে আইনি কোনো বাধা নেই।

এর আগে গত ১৬ আগস্ট আপিল বিভাগের অবকাশকালীন চেম্বার জজ বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে করা আবেদনের ওপর শুনানির জন্য এ দিন ধার্য করেছিলেন।

তথ্য সচিব, শ্রম সচিব, নবম ওয়েজ বোর্ডের চেয়ারম্যান, মন্ত্রিসভা কমিটির আহ্বায়ক হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে গত ৮ আগস্ট আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদন করেন।

গত ৬ আগস্ট নবম ওয়েজ বোর্ডের প্রজ্ঞাপন প্রকাশের ওপর দুই মাসের স্থিতাবস্থা জারি করেছিলেন হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ।

একইসঙ্গে, অংশীজনদের (নিউজ পেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের-নোয়াব) আপত্তি ও সুপারিশ প্রজ্ঞাপনে বিবেচনায় না নেয়া কেন বেআইনি ও আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত। চার সপ্তাহের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, তথ্য সচিব, শ্রম সচিব ও ওয়েজ বোর্ডের চেয়ারম্যান নিজামুল হককে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

আগের দিন ৫ আগস্ট হাইকোর্টে রিট করেন নিউজ পেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব) সভাপতি ও দৈনিক প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান।

রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট বেঞ্চ গত ৬ আগস্ট বিষয়টি নিয়ে রুলসহ ওয়েজ বোর্ডের গেজেট প্রকাশে দুই মাসের স্থিতাবস্থার আদেশ দেন।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে আহ্বায়ক করে চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি মন্ত্রিসভায় এ নবম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ বাস্তবায়ন সম্পর্কিত মন্ত্রিসভা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। পরে ওবায়দুল কাদের গত ২৫ জুলাই জানিয়েছিলেন, নবম ওয়েজ বোর্ডের সুপারিশ চূড়ান্ত হয়েছে। মন্ত্রিসভা অনুমোদন করলে তা প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশ করা হবে। কিন্তু প্রজ্ঞাপন প্রকাশের আগেই রিট করায় হাইকোর্টের আদেশে তা আটকে যায়। চূড়ান্ত গেজেট প্রকাশের আশঙ্কা থেকেই রিট দায়ের করা হয়। আজ হাইকোর্টের আদেশ আপিল বিভাগে স্থগিত হওয়ার পর আবার গেজেট প্রকাশের পথ উন্মুক্ত হলো।

২০১৮ সালের ৪ নভেম্বর সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ডের রোয়েদাদের সুপারিশ তথ্যমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন নবম ওয়েজ বোর্ডের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. নিজামুল হক।

এ সুপারিশ মন্ত্রিসভায় উত্থাপিত হয়। এর আগে আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হককে প্রধান করে গত বছর ২৯ জানুয়ারি ১৩ সদস্যের নবম ওয়েজ বোর্ড গঠন করা হয়।

ওয়েজ বোর্ডে সাংবাদিকদের বেতন কাঠামো চূড়ান্ত করে থাকে। সর্বশেষ ২০১২ সালে সাংবাদিকদের জন্য অষ্টম ওয়েজ বোর্ড গঠন করা হয়েছিল। পরের বছর এই বোর্ড নতুন বেতন কাঠামো চূড়ান্ত করেছিল। দীর্ঘ ৭ বছর পর নতুন ওয়েজ বোর্ড ঘোষণা প্রক্রিয়া চলছে।



মন্তব্য চালু নেই